ক্যাটেগরিঃ ফিচার পোস্ট আর্কাইভ, স্বাধিকার চেতনা

 

আজ ৩রা নভেম্বর । জাতির কপালে লেপটে থাকা এক কলঙ্কময় দিন । পাপ করেছে মহাপাতকেরা আর মহাপাপের কলঙ্কের বোঝা চাপিয়ে দিয়েছে পুরো জাতির ঘাড়ে । শনির দশা থেকে বাংলাদেশের জনগণ আজো মুক্তি পায়নি । সদ্য স্বাধীন দেশের প্রাণপুরুষকে হত্যার পর জাতির প্রিয় সন্তান জাতীয় চার নেতাকে জেলের অভ্যন্তরে পৈশাচিক কায়দায় হত্যা করল আত্মস্বীকৃত খুনিরা । চরম এ পাপের অপনোদন এখন পর্যন্ত হলো না ।

খোন্দকার মোশতাক আহমদ বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে ইমডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করেন । জিয়াউর রহমান সেই কুখ্যাত অধ্যাদেশকে শাসনতন্ত্রে অন্তর্ভূক্ত করে সংবিধানকে কালিমালিপ্ত করেছেন, খুনিদের পক্ষ নিয়েছেন । ১৯৭৯ সালের ৫ এপ্রিল ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ পার্লামেন্টে পাস হওয়ার কারণেই জেল হত্যাকাণ্ডের বিচারের পথও রুদ্ধ হয়েছিল । ১৯৭৫ সালের ৪ নভেম্ভর জেল হত্যাকাণ্ড সম্পর্কে বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিশন গঠন করতে বাধ্য হন খোন্দকার মোশতাক । ঐ হত্যাকারীদেরকে নিরাপত্তার নিশ্চয়তা দিয়ে কীভাবে দেশ ত্যাগ করার সুযোগ দেয়া হলো, সে সকল বিষয়েও কমিশনকে তদন্তের এখতিয়ার দেয়া হয় । ৫ নভেম্বর কমিশন গঠন সম্পর্কীয় বিশেষ নির্দেশ ‘বাংলাদেশ গেজেট‘ এর মাধ্যমে প্রকাশ করা হয় । যার Registered No. DA-1. WEDNESDAY, NOVEMBER 5, 1975/ No. 768-Law/ BANGLADESH GAZETTE.

অথচ চার দিন পর ৯ই নভেম্বর জিয়াউর রহমান উপরিউক্ত তদন্ত কমিশন বাতিল ঘোষণা করেন ।*
১৯৮০ সালের ১৮ই সেপ্টেম্বর থমাস উইলিয়ামের নেতৃত্বে লন্ডনে বঙ্গবন্ধু হত্যা ও জেল হত্যাকাণ্ডের তদন্তের জন্য একটি কমিশন গঠন করা হয় । বঙ্গবন্ধু, তাঁর পরিবারবর্গ ও ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে আটক অবস্হায় জাতীয় চার নেতার হত্যার জন্য দায়ী অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইন ও বিচারের প্রক্রিয়াকে যে সকল প্রতিবেশ বা অবস্হা বাধাগ্রস্ত করছে সেসবের তদন্তের জন্য ঐ কমিশন গঠন করা হয় । এ উদ্দেশে কমিশন ঢাকা আসতে চাইলে ১৯৮১ সালের ১৩ই জানুয়ারি জিয়াউর রহমানের সরকার তাঁদের ভিসা দিতে অস্বীকৃতি জানায় ।

১৯৯৬ সালের ১২ই নভেম্বর জাতীয় সংসদে ইনডেমনিটি (বাতিল) আইন ‘৯৬ পাস হয় । বিএনপি আবারও হত্যাকারীদের পক্ষ নিয়ে ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ বাতিল প্রক্রিয়ার সাথে নিজেদের সম্পৃক্ত করল না । বিএনপি ঐ দিন জাতীয় সংসদে যথারীতি অনুপস্হিত থাকল ।

‘৯৬ সালে ১৫ই ফেব্রুয়ারির প্রহসনের নির্বাচনেও হত্যাকারী কর্ণেল রশিদকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত করে জাতীয় সংসদে বিরোধী দলীয় নেতার আসনে বসিয়েছিল বিএনপি ।

এভাবেই হত্যাকারীদেরকে কোলে পিঠে রেখে প্রতিনিয়ত তাদেরকে বাঁচানোর অপচেষ্টা করা হয়েছে ।

* On November 9, 1975, Gen. Zia dissolved the Judicial Commission set up to inquire into the murder of four ministers ( in the Dhaka Central Jail ) .
– Keesing`s Contemporary Archives, p.27,521-22 dated: 16 January, 1976.

ছবি: বিডিনিউজ২৪.কম থেকে