ক্যাটেগরিঃ চারপাশে

মিরসরাই এর দুর্ঘটনা জাতির জাতীয় জীবনে কি নিদারুণ আঘাত হেনেছে এ কথা চিৎকার দিয়ে প্রমাণ করার দরকার আছে বলে মনে হয় না ! এমন ঘটনা আমাদের কাছে মোটেই নতুন না । তবে কি আমরা এ ঘটনায় অবাক হবো না? হবো না মানে !

নিষ্পাপ শিশুদের দীর্ঘ লাশের মিছিল ! পিতার কাঁধে পুত্রের শবদেহ ! জননীর আর্তচিৎকার ! ভাই-বোনের আহাজারি ! আত্মীয় স্বজনের মাতম ! সারা জাতির হাহাকার ! এসব তো নতুন । নিষ্পাপ শিশুদের এতোখানি দীর্ঘ লাশের মিছিল আমি তো এ জীবনে দেখিনি ! !

কি বলার আছে আমাদের ! নেই মানে ! অবশ্যই বলার আছে । ট্রাক ড্রাইভার কেন গাড়ী চালানো অবস্থায় মুঠোফোনে কথা বলতে বলতে আমাদের শিশুদেরকে নিমেষেই হত্যা করে ফেলল ?

ওদেরকে গ্রেফতার করতে কারা গড়িমসি করে জনগণ জানে । আমরা এও জানি ড্রাইভারকে বাঁচাতে গাড়ির মালিক এগিয়ে আসবে নগদ অর্থের পুটলি নিয়ে । যদি সে সম্ভাবনাও দেখা দেয় তবে সেই গাড়ির মালিককেও ধরা হোক এতোগুলো হত্যাকান্ডের হত্যাকারীকে বাচাঁনোর চেষ্টার মহাঅপরাধে । যদি কোন পুলিশ কমকর্তা ঐ নগদ অর্থের মালিক বনে যেতে চেষ্টা করে তাকেও আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তির ব্যবস্হা না করলে এই নিদারুণ যন্ত্রণা থেকে মুক্তি নেই আমাদের ।

প্রশাসনের নাকের ডগায়, ডিসি এসপি সাহেবদের চোখের সামনে এইসব আনাড়ি ড্রাইভাররা বহাল তবিয়তে দুর্ঘটনা ঘটিয়ে চলে আর তাদের কিছুই করণীয় নেই ! জনগণের ট্যাক্সের টাকায় বেতন-ভাতা আর উচ্চ পদমর্যাদা ভোগ করেন তারা , বিনিময়ে জনগণকে কি সেবা দেন ! কি পাই জনগণ ! কি পাচ্ছে জনগণ তাদের থেকে ! রাষ্ট্রের সেবায় তারা নিজেকে কতটুকু নিয়োজিত
রাখেন ! আমরা এই অসহনীয় যাতনা থেকে মুক্তি চাই ।