ক্যাটেগরিঃ আন্তর্জাতিক

গত অর্ধ শতাব্দীর মধ্যে ভয়াবহ খরা দেখা দিয়েছে হর্ন অব আফ্রিকা খ্যাত অঞ্চলগুলোতে । ঐ অঞ্চলে তীব্র খাদ্য সঙ্কট দেখা দিয়েছে । এর মধ্যে রয়েছে সোমালিয়া , ইথিওপিয়া , কেনিয়া, জিবুতি প্রভৃতি দেশ । ইউনিসেফ বলেছে , এই পরিস্থিতি থেকে শিগগিরই উন্নতি লাভের আশা নেই । নিরাপত্তা পরিস্থিতি খারাপ থাকা সোমালিয়ার অবস্থা আশঙ্কাজনক । সোমালিয়ার বাকুল ও শাবেলি এলাকায় জাতিসংঘ দুর্ভিক্ষ পীড়িত অঞ্চল ঘোষণা করতে পারে বলে অনুমান করা হচ্ছে । খরা ,দারিদ্র্য আর সহিংসতা একযোগে ছড়িয়ে পড়েছে ঐ অঞ্চলগুলোতে । সোমালিয়ার ১০ মিলিয়ন ( ১ কোটি ) মানুষ দুর্বিষহ জীবনের কবলে পড়েছে । সর্বত্র হাহাকার । খাদ্য নেই । উল্লেখযোগ্য সংখ্যক শিশুর প্রাণহানি ঘটছে প্রতিদিন । দিনের পর দিন সামান্য পানি খেয়ে জীবন পার করে চলেছে তারা । ধারণা করা
হচ্ছে , আগামী মাসগুলোতে পরিস্থিতি আরো বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারে ।

এদিকে মুসলিম জঙ্গি সংগঠনগুলোর তৎপরতা সুখকর নয় । আল কায়েদার সাথে যুক্ত আল শাবাব গোষ্ঠী নিয়ন্ত্রণ করছে এসব এলাকা । একারণে ত্রাণ সহায়তা কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ঝুঁকি নিতে আগ্রহ কম দেখাচ্ছে বেশ কিছু দেশ । ব্যাপক সংখ্যক সোমালিয় নাগরিক তাই সীমান্ত পাড়ি দিচ্ছে । তাদের গন্তব্য কেনিয়ার উদ্বাস্তু শিবির । খরা উপদ্রুত অঞ্চলের মানুষের সাহায্যের জন্য জি -২০ গ্রুপের পক্ষে আগামী সোমবার রোমে উচ্চপর্যায়ের জরুরী সম্মেলন ডাকা হয়েছে । এক্ষেত্রে জাতিসংঘ কয়েক কোটি ডলার অনুদান পাওয়ার আশা করছে ।

“http:// BBC News- In pictures: Kenya Refugee camp”
“http:// BBC News – Famine to be declared in Somalia