ক্যাটেগরিঃ দিবস প্রসঙ্গ

 

Womens Day-2016

একদিকে ‘মহিলা’, অন্যদিকে ‘নারী’। এ দুটি শব্দ নিয়ে নানা মতভেদ আছে দেশে। দুটি শব্দকে আলাদা আলাদা ভাগ করে দুই রকমের অনুসারীর সংখ্যাও নেহায়েত কম নয়। বাকযুদ্ধ বেধে যায় জনে জনে। আসলে কোনটি সঠিক- মহিলা, নাকি নারী?

আজ মঙ্গলবার, ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস। নামে নারী দিবস হলেও সারা দেশে ‘মহিলা’ শব্দটির জয়জয়কার। সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে ‘মহিলা’ শব্দের বহুল প্রচলন দেখে এ দুটি শব্দের অনুসারীদের মধ্যেও দ্বন্দ্ব জোরালো হয়।

একটু খেয়াল করলেই দেখা যায়, দেশের সরকারি দফতর বা বিভাগ অথবা সংস্থাগুলোয় ‘মহিলা’ শব্দটি বেশি ব্যবহৃত। যেমন- মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়, মহিলা বিষয়ক অধিদফতর, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা, মহিলা পুলিশ, মহিলা কলেজ, মহিলা হোস্টেল ইত্যাদি।

এদিকে, ‘নারী’ যে কোনোখানেই নেই তাও কিন্তু নয়। যেমন- নারী নির্যাতন, নারী নির্যাতন আইন, নারীর ক্ষমতায়ন ইত্যাদি।

অর্থবোধক দিক থেকে দুটো শব্দ আবার সমার্থক বলেই মেনে নিতে হবে। বাংলা একাডেমি থেকে প্রকাশিত সর্বশেষ ‘ব্যবহারিক বাংলা অভিধান’ গ্রন্থে খুব একটা পার্থক্য দেখা যায় না এ দুটির শব্দের।

সেখানে ‘মহিলা’ শব্দের অর্থ লেখা আছে- সম্ভ্রান্ত নারী, যে কোনো নারী বা স্ত্রীলোক। অন্যদিকে ‘নারী’ শব্দের অর্থ দেওয়া হয়েছে- স্ত্রীলোক, রমণী, মহিলা, পত্মী।

অনেকের ধারণা হচ্ছে- ‘মহিলা’ শব্দটি এসেছে মহল থেকে। ফলে নারীদের মহিলা নামে ডাকা মানে তাদের মর্যাদাহানি ঘটানো। কেউ কেউ বলছেন, অনেকদিন আগে থেকে মহিলা শব্দটি ব্যবহার করতে করতে এটির প্রচলন অনেকটাই বেড়ে গেছে। কিন্তু নারী শব্দটি বেশি মর্যাদাকর।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক আহমদ কবির কিন্তু ভিন্নমত দিয়েছেন। তিনি মনে করেন, ‘মহিলা’ শব্দটি নারীর সম্ভ্রান্ত রূপ। এটি একজন নারীকে সম্মানজনক সম্বোধন বলেই বিবেচিত। এটি গুরুগম্ভীর শব্দ। অন্যদিকে, ‘নারী’ শব্দটি অন্যটির চেয়ে তুলনামূলক হালকা। ব্যাপকভাবে এর প্রচলন নেই। ‘নারী’ শব্দটি ততটা ভারী নয় বলেই বিভিন্ন সংস্থা বা দফতরে মহিলা শব্দটির অধিক ব্যবহার দেখা যায়।

অন্য একটি সূত্র আবার অন্য কিছু বলছে-

‘মহল’ শব্দটি আরবি । আর ‘মহিলা’ শব্দটি সংস্কৃত । যা ‘মহ্’ ধাতু থেকে এসেছে। যার অর্থ ‘মহৎ’ কিংবা ‘মহতী’ । সুতরাং আরবি ‘মহল’ শব্দ থেকে ‘মহিলা’ শব্দটি এসেছে । এই ধারণা ঠিক নয় । বরং ‘নারী’ শব্দটিই এসেছে ‘নর’ এর স্ত্রী লিঙ্গ বোঝাতে । [সূত্র: Sir Graves C. Haughton সম্পাদিত বাংলা-সংস্কৃত-ইংরেজি অভিধান]

শব্দ দুটো নিয়ে টানাটানি যতই চলুক, আজ কিন্তু সত্যিই আন্তর্জাতিক নারী দিবস। জাতিসংঘ ঘোষণা করার পর ১৯৭৫ সাল থেকে অদ্যাবধি প্রতিবছর দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হচ্ছে বিশ্বব্যাপী। বাংলাদেশেও এ দিবসটি ঘিরে ভাবগম্ভীর কর্মসূচি পালন করতে দেখা যায়। অন্তত এই দিনটিতে নারীর প্রতি শ্রদ্ধা, সহমর্মিতা এবং কৃতজ্ঞতাবোধের ধরণ বদলে যায়।

এবার নারী দিবসের প্রতিপাদ্য- অধিকার, মর্যাদায় নারী-পুরুষ সমানে সমান।

লেখক : সাংবাদিক, news.joynal@gmail.com