ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর (এমপি) বলেছেন, সোনার বাংলা গড়তে হলে আলোকিত মানুষ হতে হবে। শুধু পুঁথিগত বিদ্যা শিখে বড় বড় ডিগ্রী নিলেই আলোকিত মানুষ হওয়া যায় না। যন্ত্রের মত আমাদের শিশুদের মানুষ তৈরি করে কোনো লাভ নেই। লেখাপড়ার পাশাপাশি সাহিত্য সাংস্কৃতি, কবিতা, সংগীত, নাটকসহ সকল বিষয়ে জ্ঞান অর্জন করলেই আলোকিত মানুষ হওয়া যায়।

গতকাল রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার রতনপুর ইউনিয়নের রতনপুর আবদুল্লাহ উচ্চ বিদ্যালয়ে মুক্তিযুদ্ধ কর্ণার উদ্বোধন এবং বার্ষিক সাংস্কৃতিক ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, “আমাদের এ তরুণ প্রজন্মের ভেতরে সাহিত্য-সংস্কৃতির চর্চা না থাকায় অন্ধকার জগতে ও জঙ্গিবাদের দিকে তারা ধাবিত হচ্ছে।”

হলি আর্টিজানে জঙ্গিদের কর্তৃক নির্মম হত্যাকাণ্ডের কথা স্মরণ করে তিনি বাংলার ঘরে যেন আর জঙ্গিবাদ সৃষ্টি না হয়ে সেজন্য শিক্ষার্থীদের সু-শিক্ষায় আলোকিত মানুষ হয়ে সোনার ডিজিটাল বাংলা গড়ার আহবান জানান।

এসময় মন্ত্রী নবীনগর প্রেসক্লাবের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে নবীনগরে একটি সংস্কৃতিক কমপ্লেক্স নির্মানের ঘোষণা দেন। মন্ত্রী এর আগে বিদ্যালয়ে স্থাপিত ‘মুক্তিযুদ্ধ কর্ণার’ উদ্বোধন করেন।

স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি সৈয়দ জাহিদ হোসেন সাকিলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মূল আলোচক ছিলেন নবীনগরের কৃতি সন্তান একুশে পদকপ্রাপ্ত নাট্যব্যক্তিত্ব আলী যাকের।

 

 

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন- বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় কৃষক লীগের উপদেষ্টা শিল্পপতি এবাদুল করিম বুলবুল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ হালিম, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট কাজী মোর্শেদ হোসেন কামাল, জেলা পরিষদ সদস্য ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি বোরহান উদ্দিন আহমেদ, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন সরকার, নবীনগর প্রেসক্লাব সভাপতি সমকালের সাংবাদিক মাহাবুব আলম লিটন, রতনপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যন মো. রুহুল আমীন, জেলা শিল্পকলা একাডেমির সেক্রেটারি সঞ্জয় সাহা, শ্রীকাইল কলেজের সাবেক ভিপি গোলাম মোস্তফা ফারুক প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুম, এএসপি চিত্ত রঞ্জন পাল, ওসি আসলাম সিকদার, রতনপুর আবদুল্লাহ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তানজিনা আক্তার আলেয়া, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব জিয়াউল হক সরকার, জেলা পরিষদ সদস্য ডাঃ মোজাম্মেল হক, জেলা পরিষদ সদস্য সোনিয়া আক্তার সুচী, জেলা পরিষদ সদস্য প্রভাষক নূরুন্নাহার বেগম, শিল্পপতি মো. আবদুল হক, কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা জহির উদ্দিন সিদ্দিক টিটু, কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতি ফোরামের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদা আক্তার শিউলীসহ স্থানীয় অন্যান্য রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ।

অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন নবীনগর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষক মো. ওয়োজেদ উল্লাহ জসিম এবং নারায়ণগঞ্জ জেলা সংস্কৃতিক বিষয়ক কর্মকর্তা সৈয়দা শাহিদা আক্তার।