ক্যাটেগরিঃ প্রযুক্তি কথা

 

লেখার শুরুতে সবাইকে জানায় আমার হাজার হাজার সালাম ও প্রীতি! আমি সেই সকল ভাই এর কাছে ক্ষম্মা চায়্তেছি যারা ইন্টারনেট এ আয় মানে ভাবেন ** ম ল ম বিজিনিস** আর **ইনভেসমেন্ট বিজিনিস**! কিন্তু এটা সটিক নয় ! আপনি বিনা ইনভেসমেন্ট এ ও ইন্টারনেট থেকে আয় করতে পারবেন! ইটা হতে পারে $১০০ -$১০০০০! তাই নিচে লিখা টা খুব মন দিয়ে পড়ুন আর বেছে নিন আপনার ইনকামের পথ!
১. গুগল এ্যাডসেন্স:
গুগল এডসেন্স অনলাইনে টাকায় আয় অনেক বড় ও বিশ্বাস একটা পথ। এথেকে অনেকে অনেক পরিমানে টাকা আয় করতেছে। গুগল এডসেন্স কিভাবে কাজ করে তা জানা দরকার তাই না , আপনারা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ওয়েব সাইট এ ভিজিট করেন , সে সময় দেখবেন বিভিন্ন পিকচার এ্যাড বা টেক্সলিঙ্ক এ্যাড থাকে এবং তার নিচে লেখা থাকে এ্যাড বাই গুগল । আপনি বা অন্য কোন ভিজিটর ঐ পিকচার এ্যাড বা টেক্সলিঙ্ক এ্যাড ক্লিক করলে সাইট এর মালিক তার গুগল এডসেন্স একাউন্টে নিদির্ষ্ট পরিমান ডলার জমা হয়ে যায় । আপনার একাউন্ট এ এক এডসেন্স ১০০ ডলার জমা হলে আপনি টাকা আনতে পারবেন । আর এটা চেক আর মাধ্যমে আনতে পারবে এবং যে কোন ব্যাংক থেকে টাকা তুলতে পারবেন। এডসেন্স প্রোগ্রাম গুলোর মধ্যে সবচেয়ে ভাল মাধ্যম হচ্ছে গুগল এডসেন্স । এদের পেমেন্ট ব্যবস্থাও অনেক ভাল এদের নামে এখন পযন্ত কোন খারাপ রিপোর্ট বেড় হয় নি । আসলে এটা সবচেয়ে বড় সার্চ ইঞ্জিন গুগল এর একটি প্রোগ্রাম । তাই খারাপ হয়ার কোন সুযোগ নেই ।
AdSense
২.গ্রাফিক্স ডিজাইন করে :
যদি একজন ভালো Logo / Graphics ডিজাইনার হন , তাহলে আপনি Graphics Competition করে ১০০ শত থেকে ২০০০হাজার পযন্ত টাকা উপার্জন করতে পারেন। আজ আপনাদের সে রকম একটা সাইট এর সাথে পরিচয় করে দিবো। সাইট টির নাম হল 99designs । এ সাইট টি এর মাধ্যমে আপনারা Graphics Competition করতে পারবেন। এ ওয়েব সাইট টি পতিনিয়ত প্রচুর পরিমানে Graphics কাজ জমা হচ্ছে।এ সাইট টি একটি নির্ভর যোগ্য সাইট। এ সাইটে বাংলাসদেশের অনেকে কাজ করচ্ছেন ।
৩. আউটসোর্সিং ফ্রিল্যান্সিং:
আমাদের দেশে অনলাইন ভুবনের তরুণদের কাছে বহুল আলোচিত বিষয়ের একটি হচ্ছে অনলাইন আউটসোর্সিং ফ্রিল্যান্সিং । ফ্রিল্যান্সিং আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে নিজেদের ভাগ্যকে পুরোপুরি বদলে দিতে সক্ষম হয়েছেন অনেকেই ৷পড়ালেখার পাশাপাশি বা পড়ালেখা শেষে ফ্রিল্যান্সিং আউটসোর্সিং করে যে কেউ গড়ে নিতে পারেন আপনার নিজের ভবিষ্যত্ ক্যারিয়ার ।
যদিও আমাদের দেশে এখনও এ বিষয়টি অনেক এগিয়ে । এরই মধ্যে অনেকে ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে নিজেদের ভাগ্যকে সম্পূর্ণরূপে পরিবর্তন করতে সক্ষম হয়েছেন। পড়ালেখা শেষে বা পড়ালেখার সাথে সাথে ফ্রিল্যান্সিং করে গড়ে নিতে পারেন আপনার ভবিষ্যৎ ক্যারিয়ার। উন্নত দেশগুলো কাজের মূল্য কমানোর জন্য আউটসোর্সিং করে থাকে এবং তারা ভারত , পাকিস্থান এবং বাংলাদেশ কে বেশি কাজ দিতে চায় কারন তারা কম মুল্য কাজ় গূলো করিয়ে নিতে পারে। তবে আমাদের চেয়ে ভারত এবং পাকিস্তান সেই সুযোগ টিকে খুবই ভালভাবে কাজে লাগিয়েছে।
আউটসোর্সিং ফ্রিল্যান্সিং এর কয় একটি জনপ্রিয় সাইট:
# http://www.RentACoder.com
#http://www.Joomlancers.com
# http://www.oDesk.com
৩. পি টি ছি সাইট থেকে :
PTC নিয়ে এর আগেও একটা পোষ্ট দিয়েছিলাম। আজ একটু বিস্তারিত আলোচনা করবো কিভাবে PTC থেকে আয় করা যায়। আমি মুলত একজন ফুলটাইম freelancer। অনলাইন এ আয় করি, তাই অনেকেই আমার কাছে আসে কাজের জন্য। কিন্তু সবাই কে তো আর কাজ দিতে পারিনা। তাই তাদের PTC করার জন্য বলতাম। কিন্তু কিছুদিন পর ওরা সবাই আমাকে গালমন্দ করা শুরু করলো। PTC থেকে নাকি আয় করা যায় না। শেষমেষ আমি নিজেই নেমে পড়লাম, কিভাবে PTC থেকে আয় করা যায় গবেষণা করতে। গত ২ মাসের অভিঞতা শেয়ার করবো। যদি আপনাদের কাজে লাগে তাহলে ভালো লাগবে।

আমি এখানে Alivebux সাইট টি নিয়ে আলোচনা করবো। অন্যান্য সাইটেও এই টিপস গুলো কাজে লাগবে (সব সাইটেই সিস্টেম একই)। PTC তে ব্যর্থ হও্য়ার একটা বড় কারণ হলো, প্রচুর scam সাইট আছে, প্রায় ৯৫ ভাগই scam সাইট। তাই PTC নিয়ে কাজ করতে হলে প্রথমেই elite বা legit সাইট খুজে বের করতে হবে(এটাই কঠিন কাজ)। Alivebux একটি elite সাইট। গত ৬ মাস এই সাইট টি তাদের মেমবার দের কোনো অভি্যোগ ছাড়াই পে করে আসছে (instant payment)। এখন দেখি কিভাবে এই সাইট থেকে আয় করা যায়।

এই সাইট এ রেজিষ্ট্টেশন ফ্রি। রেজি: করার পর এই সাইট এ লগ ইন করলে View Advertisements দেখতে পাবেন, এটাতে ক্লিক করুন। পেজ টি ওপেন হলে দেখতে পাবেন আপ;নার জন্য কিছু এড আছে যেগুলো আপনাকে ভিজিট করতে হবে। একটা এডের ওপর ক্লিক করলে ছোটো লাল একটা চিন্হ আসবে, লাল টার ওপর ক্লিক করলেই এডটি ভিন্ন একটা ট্যাবে ওপেন হবে। কিছুক্ষন ওয়েট করলেই মেসেজ আসবে Advertisement validated! $0.001 were credited in your account. এইভাবে দিনে ১৫/২০ টা এডস পা্ওয়া যাবে। সব ভিজিট হয়ে গেলে আপনার নামের পাশে দেখতে পারবেন কত $ জমা হয়েছে। $২ জমা হলে আপনি এলার্টপে তে $ নিতে পারবেন। এভাবে $২ জমা হতে প্রা্য় 10 din সময় লেগে যেতে পারে!!! এখন প্রশ্ন হল, এতদিন ধরে কাজ করে $২ দিয়ে কি হবে? আসলে PTC তে ব্যর্থ হওয়ার এটাই মুল কারণ। আসলে PTC একটা দলীয় খেলার মত, একা একা এইখানে খুব বেশি কিছু করা যায় না। সফল হতে গেলে আপনার একটা দল(team) লাগবে।
উদারণ টা দেখুন ভালো করে :
এখানে আপনি রেজিষ্ট্রেশন করলে সাথে সাথে পাবেন একটি রেফারাল আইডি। এই আইডি দ্বারা আপনি আরও অনেক লোককে নানাভাবে এই সাইটে রেফার করতে পারবেন। আপনার রেফারাল প্রত্যেকের আয়ের সমান পরিমান টাকা জমা হবে আপনার একাউন্টে। তাই প্রকৃত অর্থে আয়ের পরিমাণ কিন্তু কম নয়। মনে করুন আপনার একটি একাউন্ট আছে সেখানে আপনি উপার্জন করেন মাত্র ১০ সেন্ট এবং আপনার রেফারাল করেছেন ২০ জন। এখন তারা যদি তাদের অর্থের আশায় মাত্র ১০ টি করে এ্যাড দেখে যার প্রতিটি এ্যাডের পেমেন্ট হয় ১ সেন্ট তাহলে আপনি পাবেন মোট ১০+(২০x১০)=২.১০ ডলার প্রতিদিন যা বাংলাদেশের হিসেবে ১৪৯.১ টাকা, মাত্র ২০ মিনিট সময় ব্যয় করে। তাহলে এর চেয়ে সুবিধা কোথায় পাবেন বলুন?
আমার পরীক্ষিত পি টি ছি সাইট:
# www.alivebux.com
# পোস্ট টা যদি কারো উপকারে লাগে তা হলে একটু আওজ দিবেন! পোস্ট টা পড়ার জন্য সবাই কে অনেক অনেক ধন্যবাদ !!!!!