ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

বিডিনিউজ২৪.কম এ খবরটা পড়ে বাকরুদ্ধ হয়ে গেলাম, এই ভয়ংকর আবিষ্কারের জন্য এই লোকের জন্য একটা বিশেষণ খুজতে লাগলাম, তাৎক্ষনিক ভাবে “উম্মাদ” শব্দটা ছাড়া আর কিছুই মাথায় আসছিল না। আশাকরি খবরটা সম্মানিত ব্লগারদের নজর এড়াতে পারেনি, তারপরও নিউজটা আরেকবার দেখে নিন। “৩০ লাখ শহীদ অবান্তর, অলি আহমদের দাবি”

ক্ষমতার লোভে উম্মাদ অলি এতটাই উম্মাদ হয়েছেন যে, আজ লাখো শহীদের রক্ত আর অসংখ্য মা বোনের সম্ব্রমের সাথে বেঈমানি করতেও কোন প্রকার দ্বিধা করছে না। হায়রে মুক্তিযোদ্ধা ! তোমার দীর্ঘ দিনের ক্ষমতা লিপ্সুতা, পল্টিবাজি আর অবিরাম ভন্ডামির পরও তোমাকে একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবেই বিবেচনা করতাম, কিন্তু আজ তুমি আমার মতো কোটি বাঙালীর সেই বিবেচনাকে ভুল প্রমাণ করে দিলে। ধন্যবাদ ডঃ অলি, তোমার মুক্তিযুদ্ধার লেবাসী চরিত্রটা নতুন করে আমাদের সামনে উম্মচিত করার জন্য। দুটা জিনিস ভাবনায় চলে আসে, (১) হয় তুমি বাধ্য হয়ে নিজের ইচ্ছার বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছিলে, যুদ্ধ পরবর্তী স্বাধীন দেশে ক্ষমতা আর অর্থনৈতিক সুবিধা ভোগের আসায়। (২) না হয় তুমি ক্ষমতার লোভে উম্মাদ হয়ে জামাত কে খুশি করে, খালেদার জোটে শক্ত পোক্ত ভাবে স্থান পেতে চাচ্ছ। যেটাই করে থাক বা করছো না কেন, তোমার ভন্ড, উম্মাদ চরিত্র জাতির কাছে আজ উম্মোচিত। পাশাপাশি আজ তুমি, তোমার নিজের এবং তোমার পূজনীয় মুক্তিযোদ্ধার প্রশ্নবিদ্ধ অবদানকে পরিস্কার করে দিলে। জাতির যে প্রশ্নের একটা পরিস্কার উত্তর জানা খুবই জরুরী ছিলো।

***আলোচনায় সম্মানিত ব্লগারদের মতামত, ইতিহাসবিদ কিংবা মুক্তি যুদ্ধকালীন অলিকে কাছ থেকে দেখা কোন যুদ্ধার বাস্তব অভিজ্ঞতা নিয়ে অংশগ্রহণ আমাদের জানাটাকে আরো পরিস্কার করে দিবে।

বিঃদ্রঃ স্বাধীনতা বিরোধী, অশালীন ও অপ্রাসঙ্গিক মন্তব্য বর্জনীয়।

কৃতজ্ঞতাঃ বিডিনিউজ ২৪.কম