ক্যাটেগরিঃ আন্তর্জাতিক

ইয়েস…। শেষ পর্যন্ত জাতিসংঘের তরুণ উপদেষ্টা বোর্ডের নির্বাচনে এশিয়া মহাদেশে বাংলাদেশ বিজয়ী হয়েছে। এর ফলে জাতিসংঘের বিভিন্ন ফোরামে এশিয়া মহাদেশের তরুণদের প্রতিনিধিত্ব করবে বাংলাদেশ। এ অঞ্চলের তরুণদের হয়ে কথা বলবেন বাংলাদেশের নির্বাচিত তরুণ এস.এম সৈকত । আপনাদের কাছে গত অগাস্ট মাসে এ নির্বাচনের জন্য ভোট চেয়েছিলাম। আপনারা ভোট দিয়ে বাংলাদেশের প্রার্থী এস.এম সৈকত’কে এ নির্বাচনে বিজয়ী করেছেন। তাই এ বিজয় আপনাদের, এ বিজয় বাংলাদেশের।

 

জাতিসংঘের তরুণ উপদেষ্টা বোর্ডের ওয়েবসাইটে বিজয়ীদের নাম

 

UNH-1
এশিয়ার বাঘা, বাঘা দেশের যাদের সঙ্গে প্রতিদ্বন্ধিতা করে বাংলাদেশের এ প্রার্থী বিজয় ছিনিয়ে এনেছেন, তারা হলেন, শ্রীলঙ্কার Senel Wanniarachchi, অস্ট্রোলিয়ার Ho Yin William Chan, ভারতের Kabir Arora, ইন্দোনেশিয়ার Achmad Solikhin, নেপালের Brabim Kumar K.C। এশিয়ার মেয়েদের মধ্যে আছেন, অস্ট্রোলিয়ার Koel Wrigley, ভারতের Uditi Agarwal, অস্ট্রোলীয় বংশদ্ভূত থাইল্যান্ডের Alexandra (Sacha) King।

 

UNH-2

নির্বাচনের জন্য ভোট চেয়ে যখন লেখালেখি করেছিলাম, তখন অনেক বন্ধু আমায় প্রশ্ন করেছিলেন, জাতিসংঘের তরুণ উপদেষ্টা বোর্ডের বাংলাদেশের প্রার্থী এস.এম সৈকতকে ব্যক্তিগতভাবে আমি চিনি কি না? তার রাজনৈতিক কোনো মতাদর্শ আছে কি না? তার মতাদর্শ সম্পর্কে আমি ওয়াকিফহাল কি না? তখন বিভিন্ন জনকে কৌশলী উত্তর দিয়েছিলাম। আজ বলছি, এস.এম সৈকতকে আমি চিনি না। তার সঙ্গে আমার কোনো ব্যক্তিগত পরিচয় নেই। তার রাজনৈতিক মতাদর্শ সম্পর্কেও আমি জানি না। বিভিন্নজনের প্রশ্নে আমি এ বিষয়ে তাকে প্রশ্ন করলে তিনি উত্তর না দিয়ে আমার লেখাও তার ওয়াল থেকে মুছে দিয়েছিলেন। তারপরেও বিশ্বসভায় বাংলাদেশ নেতৃত্বের আসনে থাকুক, বহির্বিশ্বে সম্মানের সঙ্গে একবারের জন্য হলেও বাংলাদেশের নাম উচ্চারিত হোক, শুধু এ আশায় তার হয়ে ভোট চেয়েছি। আপনারা সে চাওয়া পুরণ করেছেন। তাই আপনাদেরকে আবারো ধন্যবাদ।

এবার আমার ফ্রেন্ডলিস্টে থাকা সাংবাদিক বন্ধুদের কাছে অনুরোধ, জাতিসংঘের প্রতিযোগিতামূলক নির্বাচনে দেশের এ অর্জনকে আপনারা গণমাধ্যমে যথাযথভাবে তুলে ধরবেন বলে আশা করি।

আহসান কামরুল
০১.১০.২০১৫ খ্রি.
ঢাকা।