ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

 

গোয়েবেলসীয় সুত্র সব মিথ্যাকে টিকিয়ে রাখতে পারে না। স্বয়ং গোয়েববেলস্ই তো টিকতে পারে নি, নেই হয়ে গেছে। কিছু সুবিধাবাদী বলছে, জিয়া নাকি বঙ্গবন্ধুর খুনী নয়। বাস্তবে বঙ্গবন্ধুর প্রধান খুনী ও খুনের প্রধান পরিককল্পনাকারীও ছিলো জিয়া। এদেশের প্রথম সামরিক স্বৈরাচার জিয়াকে আদালতই ঠান্ডা মাথার খুনী বলেছে চিহ্নিত করেছে।

জিয়া যে বঙ্গবন্ধুর খুনী ও খুনের সুবিধাভোগী তা আরেক খুনী ফারুক জানিয়ে গেছে। ফারুক ১৯৭৫ এ ইংলান্ডে গিয়ে বিবিসিতে যে সাক্ষাৎকার দিয়েছিলো সেখানে সে বলেছে, তারা বঙ্গবন্ধুকে খুন করা নিয়ে অনেক আগেই জিয়ার সাথে আলাপ করেছে আর জিয়া তাদের কে উৎসাহ দিয়েছে, খুনের পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যেতে বলেছে। জিয়া যদি খুনী নাই হবে তাহলে এটা করলো কেনো? আর ফারুক যে মিথ্যা বলে নি তার প্রমাণ জিয়া নিজেই। এ কথা বলার পরও জিয়া ফারুককে চাকুরী দিয়েছে, প্রটেকশন দিয়েছে, বিচার থেকে রেহাই দিয়েছে। ফারুকের কথা যদি মিথ্যা হতো তাহলে কি জিয়া এগুলি করতো?

সামরিক গোয়েন্দা বিভাগের সংরক্ষিত এক প্রতিবেদনে উল্লেখ আছে যে, ১৯৭৫ এর জুলাই মাসে জিয়া কুমিল্লার পল্লী উন্নয়ন একাডেমীতে খন্দকার মুশতাকের সাথে এক গোপণ বৈঠকে মিলিত হয়। তাদের সাথে ছিলো ফারুক, রশিদ ও ডালিমরা। সেটা যে বঙ্গবন্ধুকে খুন করার জন্য তাদের গোপণ পরামর্শ সভা ছিলো তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। অর্থাৎ এ প্রতিবেদনও প্রমাণ করে যে, মুনাফিক জিয়া ছিলো বঙ্গবন্ধুর খুনী।

অকৃতজ্ঞ জিয়া বঙ্গবন্ধুর খুনীদের রেহাই দিয়ে আইন পাশ করেছিলো তার সংসদে যাতে এদের বিচার না হয়, খুনীদের চাকুরী দিয়ে বিদেশ পাঠিয়েছিল। জিয়া যদি খুনী নাই হবে, খুনীদের সঙ্গী নাই হবে তাহলে এটা করলো কেনো? আর কিছু বলা লাগে বেইমান খুনী জিয়া সম্পর্কে?
সত্যকে মিথ্যাশ্রয়ীদের পছন্দ হয় না। তাতে সত্য হারিয়ে যায় না।

যারা পাপ করে আওয়ামীলীগ থেকে বহিষ্কৃত হয়েছে বিএনপি তাদের দলে নিয়েছে। মওদুদ, প্রধান, মুয়াজ্জেমরা এখন কোথায়? ওবায়েদ, তাহের ঠাকুর, আলম চাষী, মঞ্জুর গংদেরকে কোন্ দল আশ্রয় দিয়েছিলো? বিএনপি। মুশতাক আওয়ামীলীগে ছিলো বলে কি খুনী জিয়ার পাপ মাফ হয়ে যায়? কোন্ আইনে? মুশতাকের পাপের দায়ভার যেমন মুশতাকের নিজের তেমনি জিয়ার পাপের দায়ভারও জিয়ার ঘাড়েই থাকবে। ইয়াযিদও মুসলিম ছিলো। তাই বলে কি তার পাপের জন্য ইসলাম দায়ী? ইয়াযিদের সহযোগীরা কি মুসলিমদের দোষ দিয়ে নিজেদের পাপ খণ্ডাতে পারবে?

কে না জানে যে, মুশতাককে সামনে রেখে মীরজাফর জিয়াই খুন ও ক্ষমতা দখলে মেতে উঠেছিলো। জিয়া কতো নিকৃষ্ট এক স্বৈরাচার ছিলো তা তো তার প্রভু আমেরিকানরাই বলে গেছে, উইকিলিক্স তা বিশ্বজুড়ে প্রকাশ করেছে।
এসব প্রমাণের মূল্য বুঝার যোগ্যতা পাপীরা অর্জন করতে চাইবে কেনো?

বঙ্গবন্ধু হত্যায় জিয়ার জড়িত থাকার প্রমাণ আছে সাংবাদিক এন্থনি ম্যাস্কারেনহাস এর লিখা “বাংলাদেশঃ এ লিগাসী অফ ব্লাড” নামের খ্যাতনামা বইয়েও। জিয়া আরো যতো কাপুরুষোচিত খুন করেছে সেগুলির কথাও আছে ঐ বইয়ে।

জিয়াই যে বঙ্গবন্ধুর প্রধান খুনী সেই সত্যটাও তাই ইতিহাসের পাতায় অমোছনীয় কালিতে লিখা। যেমনভাবে মানুষের হৃদয়ে অক্ষয় বঙ্গবন্ধুর মহান স্মৃতি, ২১ বছর সর্বাত্মক অপপ্রচার করেও খুনীরা যা মোছতে পারে নি। তাই তো বিবিসির মিলেনিয়াম জরিপে সাধারণ মানুষের ভোটে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী নির্বাচিত হন স্বাধীনতার মহানায়ক স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব।

জানি অন্ধকারের বাসিন্দারা এরপরও মিথ্যাকে ছেড়ে আসবে না। কিছু দ্বিপদী প্রাণী সত্যকে ধারণ করতে পারে না। তাই তারা চেতনার মুল্যও জানে না। এদেশের মানুষ চেতনায় বলীয়ান হয়েই ৭১ এ পাকিস্তানীদের পরাজিত করেছে। যারা এই চেতনার বিপক্ষে তারা ঐ পরাজিতদেরই মিত্র, এদেশের শত্রু।