ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

 

খবর ১ঃ “সম্প্রতি শীর্ষস্থানীয় আন্তর্জাতিক সফ্‌টওয়ার সিকিউরিটি গ্রুপ কেস্পারস্কি বিশ্বব্যাপী সাইবার অপরাধ নিয়ে এক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এতে বাংলাদেশকে মোবাইল ম্যালওয়্যার ও অফলাইন আক্রমণের এক নম্বর, এবং অনলাইন আক্রমণের নবম টার্গেট দেশ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।”

আমরা এটা নিয়ে মোটেই চিন্তিত নই। এইসব রিস্ক-টিস্ক সব ‘রাবিশ’ প্রপাগান্ডা। আর সত্যি হলেও কী আর ছিঁড়বে দেশের? এরকম খোয়া যাওয়ার ঘটনা বিভিন্ন কৌশলে বিভিন্ন সময়ে ঘটেছে। কী হয়েছে তাতে? অর্থমন্ত্রীও জানেন, মেরে দেয়া এসব এক দুইশো মিলিয়ন ডলার কোনো বড়ো অংক নয়। আমরা এতো সহজে ডরাই না। আমরা কোনো কিছুতে প্রথম হতে পারলে বরং খুশিই হই। বিশ্বে কতো কতো দেশ! এদের মধ্যে প্রথম হওয়া এতো সহজ নয়।

এলোমেলো করে দে মা, লুটেপুটে খাই
দগদগে যতোসব ঘা, চিরুনিতে আঁচড়াই।

খবর ২ঃ” অর্থমন্ত্রী আমাআমু ‘বিবি’র উপর চটেছেন। তিনি বলেছেন তাকে নাকি এ ব্যাপারে একটি মাস অন্ধকারে রাখা হয়েছে। কিচ্ছুটি জানানো হয়নি। এই দুঃসাহস দেখানোর কারণে ‘বিবি’র লোকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন তিনি।”

সংবাদসূত্রঃ দ্য ডেইলি স্টার