ক্যাটেগরিঃ পাঠাগার

জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া থেকে শুরু করে দরকারী সকল ওয়েব এপ্লিকেশনগুলো এখন মাল্টিলিংগুয়া হয়ে যাচ্ছে। এসব সাইটের টুল, মেনু ও ফিচারে যে সমস্ত কমান্ড লেখা থাকে (যেমন ‘সেভ’, ‘ক্যানেসল’ ইত্যাদি) এর বাংলা অনুবাদ দেখে পরিষ্কার পার্থক্য করা যায় কোন অনুবাদ বাংলাদেশের এবং কোনটা পশ্চিমবঙ্গের। আমার দেখা জঘন্যতম অনুবাদগুলো জানলাম পশ্চিমমবঙ্গ কৃত। স্বাভাবিকভাবে একটু তল্লাশী চালালাম, যা জানলাম তা রীতিমত ভীতিকর। ওয়েবে বাংলার সাংকেতিক কোড বিএন, এবং এর ভেতরে দুই ভাগ ইন (মানে ইন্ডিয়া) এবং বিডি। বিডি ল্যাংগুয়েজে বাংলাদেশের অনুবাদিত শব্দ/বাক্য দেখা যায়, ইন অংশে পশ্চিমবঙ্গের। এই অনুবাদ তত্ত্বাবধানের জন্য কোথাও স্বেচ্ছাসেবক বা কোথাও পেইড অনুবাদক আছে। বিডির জন্য বাংলাদেশী এবং ইনের জন্য ইন্ডিয়ান – এমনই। এবং যেহেতু একই ল্যাংগুয়েজ সেহেতু এর প্রধান মানে বিএন-এর তত্ত্বাবধায়ক এক/একাধিক থাকবেন – সেটাই সংগত। আশ্চর্যের বিষয় হলো এই জায়গায় বাংলাদেশের বাঙালীর পরিমাণ খুবই কম।

যারা অনুবাদের কাজ করছে এদেশ থেকে তারাও ঐ এডমিনের জায়গায় যাচ্ছে না/বা আগ্রহী না। ফলে বেশীরভাগ অনুবাদে এমনকি বিডি ভার্সনেও এমন উদ্ভট ও এদেশে অপ্রচলিত শব্দের ব্যবহার দেখা যায় যা রীতিমত পীড়াদায়ক। উদাহরণস্বরূপ গুগল, মাইক্রোসফটের প্রোডাক্টের কথা বলা যায়। লিন্যাক্সের ক্ষেত্রে বিষয়টা নাকি আরো এককাঠি চড়া, বিডি ভার্সনেও কাজ করছে ইন্ডিয়ান বাঙালী। ফলে বোঝা যায় বাংলার এই অপরিচিত অনুবাদ কেনো এবং কিভাবে তৈরী হয়। অথচ ওয়েবে বাংলা ব্যবহার করে বাংলাদেশের বাঙালীরা সর্বাধিক (৭০% হতে পারে), কিন্তু শাসন করছে পশ্চিমবঙ্গের ভাষা। এদিক থেকে ফেসবুক ও উইকিপিডিয়া সম্ভবত বাংলাদেশের বাংলার দখলে আছে, ভাষা দেখে যতটুকু বুঝতে পারি। এই অবস্থার পরিবর্তন হওয়া দরকার। নইলে প্রয়োজনীয় সফটওয়ারের বাংলা ভার্সন ব্যবহার করতে মানুষ আগ্রহী হবে না।

এ বিষয়ে উইকিপিডিয়ার বাংলাদেশ চাপ্টারের প্রশাসক রাগিব হাসানের সাথে কথা হলে তিনি জানান, বাংলা উইকিতে বেশ কিছু নিবেদিত কর্মী আছে বাংলাদেশ থেকে, যারা এই অনুবাদের কাজটা করেছে। শুধু বাংলা উইকি না, মিডিয়াউইকির সফ্টওয়ার যেখানে ব্যবহৃত হয়, সবখানেই এই অনুবাদগুলা ব্যবহার হচ্ছে। আসলে http://www.translatewiki.net/ সাইটের মাধ্যমে পুরা কাজটা সহজে করা যায়।

আমার জানার আগ্রহ ছিলো মাইক্রোসফট এবং গুগলের ট্রান্সলেশন টিমে কারা কাজ করে তাদের সম্বন্ধে। রাগিব হাসান জানান,

গুগলে বাংলাদেশী ইঞ্জিনিয়ার আছে বর্তমানে গোটা দশেকের মতো। তবে তারা কেউই সম্ভবত ট্রান্স্লেশন টিমে নাই। গুগলকে অনেক ক্ষেত্রে ভাষাবিদ গোছের লোক ভাড়া করতে দেখেছি, তবে আমার মনে হয় ইন্টারফেইস অনুবাদের ক্ষেত্রে তারা গুগলের ভারত অফিসের বাঙালি (পশ্চিমবঙ্গীয়) দের উপরেই নির্ভর করে। প্রাসঙ্গিক একটা লেখা – লিংক