ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পত্রিকার মাধ্যমে জানতে পারলাম ১৭ই মে আপনাকে ছাত্রলীগ সংবর্ধনা দিয়েছে কারন আপনি সমুদ্র জয় করেছেন। আমার পক্ষ থেকেও আপনাকে অভিনন্দন ।নিঃসন্দেহে এটা বাংলাদেশ এর জন্য একটা বড় পাওয়া । আপনি সমুদ্র বিজয় করেছেন তার জন্য আপনাকে আন্তজাতিক আদালতে যেতে হয়েছে তার পর বিচারক এর উপর আপনার কোন প্রভাব ছিল না।তিনি অত্যন্ত স্বাধীন ভাবে তার রায় দিয়াছেন আর আমরা ন্যায় এর পক্ষে থাকায় রায়টি আমাদের পক্ষে এসেছে ।রায়টি আপনার হাতে না থাকা সত্ত্বেও আপনার আন্তরিক চেষ্টায় আমরা বিজয় লাভ করলাম।কিন্তু আপনাকে এমন একটা বিষয় নিয়ে বলব যেটা করতে পারলে সমুদ্র বিজয়ে যত মানুষ খুশি হয়েছে তার চেয়ে বেশি মানুষ খুশি হবে। এবং সমুদ্র বিজয় এর রায় আপনার হাতে ছিল না কিন্তু আপনি বিজয়ী হয়েছেন কিন্তু এই বিষয়টি আপনার হাতে রয়েছে এবং আপনি যদি চান তাহলে অবশ্যই আপনি বিজয়ী হবেন ।বিষয়টা আপনি জানেন আপনাকে নতুন করে বলার দরকার নাই শুধু এতটুকু বলব আপনার অনুগত ছাত্রলীগ হতে আমাদের বাঁচান। আমরা আর পারছিনা ।আমাদের শিক্ষা জীবন কে এরা জাহান্নামে পরিনত করেছে।কত খারাপ ভাবে আমাদের দিন কাটছে ও আমাদের চিন্তায় আমাদের পরিবারের কাটছে তা আপনি একটু উপলব্ধি করবেন আশা করি। ৭৫ এ আপনি স্বজন হারিয়েছেন আপনি বুঝেন স্বজন হারানোর ব্যাথা কী ও কাকে বলে, তাহলে প্লিজ একটু উপলব্ধি করুন যারা আপনার আমলে আপনার অনুগত ছাত্র দ্বারা স্বজন হারিয়াছে তাদের কি অবস্থা।তারা তো মরে বেচে গেছে আর আমরা তো এক প্রকার ছাত্রলীগ এর হাতে জিম্মি হয়ে আছি।তারা যা চাচ্ছে তাই করছে । তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনি বলেছেন এই বাংলাদেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশ করবেন কিন্তু আপনার স্বপ্নের প্রধান প্রতিপক্ষ হল আপনার অনুগত ছাত্রলীগ। তাই প্লিজ আপনি আপনার স্বপ্ন পুরন করুন এবং আমাদের এদের হাত থেকে বাঁচান এবং আমাদের অন্তরের অন্তস্থল থেকে সংবর্ধনা গ্রহন করুন।