ক্যাটেগরিঃ প্রশাসনিক

নারী, শিশু ও প্রতিবন্ধীদের চমৎকার করে এক কাতারে রাখাটা সামাজিক স্বীকৃত দৃষ্টিভঙ্গি। বাসে উঠলে এই দৃষ্টিভঙ্গির সাথে নিত্য পরিচিতি ঘটে। নগরীর বাসগুলো খুবই উদ্ভট। কোন কোন বাস এত উঁচু হয় যে বাসে ওঠা-নামা একটা ঝক্কি ও ঝুঁকিপূর্ণ। তারপর বেশকিছু বাসে কী করে যেন বাড়তি কিছু আসন তৈরী হয়ে যায়। সেগুলো গরম ইঞ্জিনের উপর, ড্রাইভারের পাশে, বাসের দরজা সংলগ্ন জানাল লাগোয়। এরকম প্রতিটি আসনই বিব্রবতকর। একদমই আরামদায়ক নয়। আর এরকম আসনগুলোই রাখা হয় নারী,শিশু ও প্রতিবন্ধীদের জন্য।

IMG_20151110_110408

ছবিতে ড্রাইভারের বসার স্থানটা বাসের বাকী অংশের চেয়ে উঁচু। এখানে দু’সারি আসন, মোট চারটা। শহরে বাস কখনই পুরোদমে থেমে যাত্রী ওঠা-নামা করায় না। এমতাবস্থায়, নারী, শিশু এবং প্রতিবন্ধী ব্যক্তির কোনভাবেই স্বাচ্ছন্দবোধ করার কথা নয়, এমন উঁচু জায়গায় আসন নিতে। তাছাড়া, যে কোন দুর্ঘটনা হলে, গাড়ির সামনের গ্লাস কোন কারণে ভেঙ্গে গেলে প্রথম সামনে আসনের নারী, শিশু ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তি দুর্ঘটনার শিকার হবেন। তাহলে, বাসে এমন ’অনিরাপদ’ আসন নারী, শিশু ও প্রতিবন্ধীদের জন্য বরাদ্দ রাখার অর্থ কী?

 

ছবিটি ১০ নভেম্বর সকাল ১১টার দিকে ধারণকৃত।