ক্যাটেগরিঃ প্রকৃতি-পরিবেশ

 
IMG_3506

বিজ্ঞানীদের সম্মানে ও সম্মানী প্রদানের ক্ষেত্রে ‘কিছু’ কুণ্ঠাবোধ রয়েছে বলে অভিমত ব্যক্ত করেছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) এবং বাংলাদেশ পরিবেশ নেটওয়ার্ক (বেন) আয়োজিত বাংলাদেশের উপকূল ও সামুদ্রিক পরিবেশ বিষয়ক বাপা-বেন বিশেষ সম্মেলনের প্রথম দিনের দ্বিতীয় সম্মিলিত অধিবেশনে রাশেদ খান মেনন প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন ।

বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণাখাতে সবচেয়ে কম বাজেট রাখা হয়। জাতীয় বাজেটেও বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির ক্ষেত্রে বাজেট খুব কম।

উক্ত অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন এশিয়া প্যাসিফিক ইউনিভার্সিটির উপাচার্য জামিলুর রেজা চৌধুরী। এছাড়া উপকূলীয় ব্যবস্থাপনার সংকট ও সম্ভাবনা নিয়ে প্রবন্ধ পাঠ করেন মোঃ খালেকুজ্জামান, লক হ্যাভেন বিশ্ববিদ্যালয়, যুক্তরাষ্ট্র এবং মোঃ শহীদুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

 

পরিবেশ রক্ষায় জাতীয় দাবির আহবান জানিয়ে রাশেদ খান মেনন বলেন, যারা পরিবেশ ধ্বংস করেছে, তাদেরই পরিবেশ রক্ষার দায়িত্ব নিয়ে হবে।

IMG_3484

 

কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে ৮-৯ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত এই সম্মেলনে ৮০টির মত প্রবন্ধ উপস্থাপিত হয়। দেশ-বিদেশের গবেষকদের পাশাপাশি উপকূলীয় অঞ্চলে পরিবেশ রক্ষার সংগ্রামে নিয়োজিত নেতাকর্মীরাও সম্মেলনে যোগ দেন।

বাংলাদেশের উপকূলীয় ও সামুদ্রিক পরিবেশের বিশেষ সমস্যাবলীর প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণে দীর্ঘ সময় ধরে কাজ করে আসছে বাপা ও বেন। ইতিপূর্বে ২০০১ সালে খুলনা শহরে সুন্দরবনের সমস্যাবলী নিয়ে সম্মেলন আয়োজন করে বাপা। পরিবেশ ও জলবায়ু সংক্রান্ত বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে সমন্বিত সুপারিশমালা প্রণয়নের ‍উদ্দেশ্যেই দুই দিন ব্যাপী এই সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।