ক্যাটেগরিঃ ভ্রমণ

জেনেভা থেকে নাকি অল্পক্ষণেই ফ্রান্স যাওয়া যায়! সীমান্ত পেরোলেই গ্রাম! আমাদের মধ্যে কানাঘুষা ছিল। আর ছিল সুযোগ খোঁজা! এরমধ্যে একজন চুপ করে ঘুরেও এলো। সুতরাং আমাদের যেতেই হবে। করনাভিনে লেক জেনেভার কিছু আগেই বাস স্টপেজ। ওখানে গিয়ে খোঁজখবর। ওরা পাসপোর্টটা কেবল একটু দেখে নিল। ব্যাস! টিকেট হাতে।

এই বাসটাই তো না? হ্যা, হ্যা, এটাই এটাই! সময়মত বাসে চেপে চোখ জানালায় রেখে গন্তব্যের অপেক্ষা… আনসি চলেছি! কে জানতো যাত্রাপথে দূরের শুভ্র তুষার চূড়ার পর্বতটা এতটা ’কিলিং’ দৃশ্য হতে পারে!

আনসির শীতল বাতাস গায়ে লেগে আছে, শীতল পাথুরে পথের নিস্তব্ধতা মনের ভেতরে ঘাপটি মেরে আছে, আর পুরনো শহরের সৌন্দর্য এখনো চোখে ভাসে।

ফিরে এসে ছবি দেখে দেখে ভাললাগাগুলো তাজা ছিল বটে, তবে তীব্রতা পেল যখন এই ট্রাভেল ভিডিও স্টোরি করার পরিকল্পনা হলো।

ওই সময় একেকটা ছবির দিকে তাকিয়ে নিজেকে পুনরায় ঠিক ভিয়েই ভিলের চিকন ঢালু গলিটাতে খুঁজে পাই!

ভিডিও স্টোরিটা সাবলীলভাবে হয়ে গেল সহকর্মী ছোটভাই নিলয় আর আলিফ এর দক্ষতায়। নিজের ভ্রমণস্মৃতির এমন চমৎকার উপস্থাপনে বারবার স্মৃতিকাতর হতে থাকি!

আনসি ভ্রমণ দুর্দান্ত ছিলই, আর সেই দুর্দান্ত স্মৃতিতে যেন পাঁচ তারকা গুজে দিল এই ট্রাভেল ভিডিওটি।

টিউব: ফ্রান্সের ‘পুরনো শহর’ ভিয়েই ভিলে কিছু সময়