ক্যাটেগরিঃ ব্লগালোচনা

 

***
কথা হচ্ছিল সহকর্মীর সাথে। শিরোনামের উক্তিটা তারই। শব্দচয়নের কারণে শুনতে কাব্যিক লাগছে বটে, কিন্তু এর নিগূঢ় অর্থটা ক’দিন ধরে ভাবাচ্ছে বেশ। আমাদের আলোচনার প্রসঙ্গ ছিল বিডিনিউজ টোয়েন্টি ফোর ব্লগ ও এর ব্লগাররা। স্বভাবতই বিডিনিউজ২৪ ব্লগ সিটিজেন জার্নালিজম ভিত্তিক ব্লগ বলে প্রত্যাশা একটু ভিন্ন রকম এই ব্লগ থেকে এবং এর নিয়মিত ব্লগারদের কাছ থেকেও। ব্লগটিকে ঘিরে নিয়মিত ব্লগারদের আগ্রহ, উদ্দীপনা বেশ জোরালো। এমনকি বিতর্কিত চেতনার কিছু গোষ্ঠিও ব্লগটিকে কব্জা করে নিতে নানা ছুতোনাতায় দলবলসহ হাজির হয়ে যায় প্রায়ই। লক্ষ্যনীয় যে, নতুন হলেও ব্লগাররা বিষয়টিকে নিয়ে সজাগ ও সচেতন হয়ে উঠেছেন দ্রুতই। ফলে অন্য পক্ষ সুবিধা করতে পারছে না বেশ একটা। আর যাদের ব্লগার হিসেবে নতুন বলছি, তারা আসলে এতো দ্রুত দক্ষ বিশ্লেষক হয়ে উঠছে যে, তাদের নতুন ব্লগার বলি সে সাহস আমার আর হয় না! প্রতিদিনই রাজনীতি নিয়ে চুলচেরা দীর্ঘ বিশ্লেষণমূলক পোস্ট আসছে। এখানেই একটু আটকে গিয়েছিলাম আমি আর আমার কলিগ। ব্লগের উদ্দেশ্য কি তাতে পুরোপুরি সাধন হচ্ছে? ’ভিউজ’ দিয়ে ব্লগ পুষ্ট হয়েছে, কিন্তু এক্সক্লুসিভ ’নিউজ’ দিয়ে ব্লগ কি সমৃদ্ধ হয়েছে? ব্লগাররা কি সচেতন ব্লগের উদ্দেশ্য নিয়ে?

***
ব্লগ টিমকে মাঝে একটা পোস্ট দিতে দেখা গিয়েছিল। জরিপ পোস্ট। ব্লগাররা কতটা সিটিজেন জার্নালিজম তাই নিয়ে। ওতে ব্লগারদের উৎসাহপূর্ণ একেকটি মন্তব্য নিশ্চয়ই এই ব্লগের পাথেয়। কিন্তু তারপরও ব্লগাররা সিটিজেন জার্নালিস্ট হয়ে উঠেননি। বিশ্লেষক হওয়ার দিকেই মনোযোগ দিয়েছেন। ফলে প্রতিদিন দু’টি প্রধান রাজনৈতিক দল নিয়ে নিয়মিত পোস্ট আসছে ব্লগারদের। বিশ্লেষণের সূত্র অবশ্য টিভি সংবাদ, পত্রিকা সংবাদ। হরতাল নিয়ে নানা ধরনের চমৎকার প্রতিক্রিয়ামূলক পোস্ট দেখা গেছে। কিন্তু বিশেষত গত এক সপ্তাহ ধরে একই প্রসঙ্গ নিয়েই নিয়মিত ব্লগাররা মেতে আছেন। এই ব্লগের রাজনীতি ক্যটাগরিতে যত সংখ্যক পোস্ট আছে, অন্য ক্যাটাগরিতে মনে হয় তার কাছে পিঠেও নেই! রাজনীতি কথনকে নিরুৎসাহিত করছি না মোটেও, কিন্তু এতো গতানুগতিক ব্লগিং চর্চা হয়ে গেল! হরতালের একটা এক্সক্লুসিভ ছবি পাওয়া গেল না ব্লগারদের কাছ থেকে! বলছি না যে কোন বিশৃংখল পরিস্থিতির মাঝে গিয়ে কেবল ব্লগের জন্য সিটিজেন জার্নালিস্ট হতে গিয়ে আপনার নিরাপত্তাকে বিঘ্নিত করুন। তবে চলতে-ফিরতে কোথায়, কয়টায় পরিস্থিতি কেমন ছিল, সেটাও তো ব্লগে দেখানো যায় ছবি ‍তুলে, ভিডিও করে। বিশেষত যখন হাতের মোবাইলে এসব সুবিধা মজুদ রয়েছেই। সম্ভবত ব্লগাররা প্রকাশিত ’নিউজ’ থেকে নিজেদের ’ভিউজ’ তৈরী করতেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছেন। প্রাত্যহিক ’ভিউজ’ থেকে ’নিউজ’ তৈরীর অবকাশ হচ্ছে না তাদের!

***
আগের ভাবনার রেশ ধরেই বলি, মাঝে মাঝে মনে হয় এ ব্লগের ব্লগাররা অন্য গ্রহে বাস করেন। রাজনীতি ভিন্ন প্রতিদিনের অনেক উচাটন পরিস্থিতি তাদের স্পর্শ করে কম। সিটিজেন জার্নালিজম ভিত্তিক একটা ব্লগে প্রতিদিন চমক থাকার কথা চলমান ঘটনাবলী নিয়ে। তেল-গ্যাস ইস্যু নিয়ে আমাদের অধিকাংশ ব্লগারদের মাঝে এক ধরনের নিস্পৃহ ভাব দেখা গেছে। মিরসরাইয়ের দুর্ঘটনার খবর এ ব্লগে উঠে আসতে অনেক সময় লেগেছে। ভিকারুননিসা বিদ্যালয়ে প্রায় প্রতিদিন শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের সমাবেশ হচ্ছে। কিন্তু এ ব্লগে তার কোন আপডেট পাওয়া যাচ্ছে না।

এ ধরনের বেশ কিছু ইস্যুতে ফেসবুক, অন্য অনেক ব্লগের পাতা স্ক্রল করলে কিন্তু ঠিকই নানা আপডেট তথ্য-ছবি পাওয়া যাচ্ছে। পরিচিত সার্কেলে কি এমন কেউ নেই যারা কোন খবরাখবর দিতে পারেন, যা ব্লগে পরিবেশন করা যায়? সিটিজেন জার্নালিজম ট্যাগ না লাগিয়েও অন্য অনেক ব্লগের ব্লগাররা অবলীলায় এর চর্চা করে যাচ্ছেন। বিডিনিউজ ২৪ এর ব্লগাররা কি বিষয়টি নিয়ে অবগত? নাকি সকল খবর পরিবেশন হয়ে যাওয়ার পর এই ব্লগে একাধিক বিশ্লেষণমূলক পোস্ট দিয়ে ব্লগাররা আবারো বিশ্লেষকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হবেন?

***
আসলে একদমই যে হচ্ছে না তা নয়। আমাদের নিয়মিত ফটোগ্রাফার ব্লগাররা দৈনন্দিন জীবনের, চলতি পথের, বিশেষ বিশেষ স্থানের ফটো আপলোড করে যাচ্ছেন প্রতিদিন। এর মধ্যে কেবল দেখার মত ছবিই আছে তা নয়, খবর ভিত্তিক ছবিও এসেছে বেশ কিছু। কিন্তু এ ধরনের ফটো পোস্টে আলোচনার কমতি দেখেছি। বড়জোর প্রশংসাসূচক মন্তব্য থাকে। এগুলো যে সিটিজেন জার্নালিজমের উদাহরণ এবং এটা অন্য অনেক ব্লগ থেকে এক্সক্লুসিভ খবর হওয়ারও সম্ভাবনা রাখে সে বিষয়ে ব্লগাররা একেবারেই অবগত নন বলেই মনে হয়।

***
ব্লগের ভিডিও ফিচারটিতে তাও পোস্ট আপডেট হয়, কিন্তু অডিও ফিচারটিতে ব্লগারদের পদচারণা কম। ভিডিওতে বিষয়বস্তুর আর শিরোনামের সামঞ্জস্যতার অভাব দেখেছি মাঝে মাঝে। তথ্য দেয়ার প্রবণতাও কম ব্লগারদের মাঝে। ব্লগাররা খবর ভিত্তিক ভিডিও প্রদান করেছেন কমই। অথচ ইউটিউব থেকেই দেশের ও বিদেশের আলোচিত, গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলোর ভিডিও পাওয়া যায়। এমনকি ব্লগাররা নিজেরাও মোবাইল থেকে ভিডিও ধারন করতে পারেন। কিন্তু এক্সক্লুসিভ ভিডিও হাতে গোনা কয়েকটি হবে ব্লগে। এবং সাথে মৃদু অনুযোগের স্বরে এও বলতে হয় যে, এগুলো যে একভাবে এক্সক্লুসিভ তা হয়ত আমাদের প্রিয় ব্লগাররা ভেবে দেখেননি।

অডিও ও ভিডিও পোস্ট ফিচারটির ব্যবহার ব্লগে একটি ভিন্ন মাত্রা যোগ করতে পারে। দীর্ঘ সন্দর্ভ না লিখে পরিচিত বন্ধু-বান্ধবদের মতামত অডিও/ভিডিও ফরম্যাটে ধারণ করে তা প্রকাশ করা যায়। পডকাস্ট সংযোজন বিদেশি ওয়েব সাইটগুলোতে দ্রুত জনপ্রিয় ফিচার হয়ে উঠেছিল।

***
ব্লগ টিম একবার আহ্বান জানানো হয়েছিল, ব্লগে সিটিজেন জার্নালিজম ক্যাটাগরিটিকে সমৃদ্ধ করার। আমাদের বিশ্লেষক ব্লগারদের এ ব্যাপারে কি কোন অনীহা আছে? সিটিজেন জার্নালিজম কি, কেন, কিভাবে ইত্যাদি নিয়ে দীর্ঘদিন কোন পোস্ট চোখে পড়ছে না। অথচ সিটিজেন জার্নালিজম নিয়ে আলোচনায় এই ব্লগ অন্যতম একটি আর্কাইভ তৈরী করতে পারে, যদি ব্লগাররা তাদের কিছুটা সময় এদিকেও দেন।

***
সম্ভবত এখনো একটি পূর্ণাঙ্গ কমিউনিটি তৈরী হয়নি এখানে ব্লগারদের মাঝে। তাই নানা বিষয়ে ব্লগ টিমকে উদ্যোগ নিতে বলা হয় ব্লগারদের তরফ থেকে। বস্তুত ব্লগার মাত্র উদ্যোগী হবেন এমনটাই প্রত্যাশা। তাই উদ্যোগ, পদক্ষেপ ব্লগাররা নেবেন। তারা প্রয়োজনে জনগুরুত্বপূর্ণ ইস্যুকে ব্লগের ভার্চুয়াল গন্ডি থেকে বার করে বাস্তবে নিয়ে আসবেন। এখানে ব্লগ কর্তৃপক্ষের সাথে থাকা না থাকাটা প্রধান কথা নয়। ব্লগ টিম যেভাবে সম্পাদনার কাজ করেন, করে যাবেন।

বাংলা ব্লগের ৫-৬ বছরের ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যাবে, আর্ত মানবতা, সামাজিক সচেতনতায় ব্লগাররা ব্লগে যেমন সজাগ ছিল, প্রয়োজনে তারা বাস্তবেও একজোট হয়ে বহুবার সাধ্যমত কাজ করেছে।

***
একটা মজার বিষয় লক্ষ্য করেছি। ফিচার পোস্টে, যেটিকে আমরা কেউ কেউ ব্যানার পোস্ট বলে থাকি, নিজেদের পোস্ট ঝুলানোর ব্যাপারে আমাদের মধ্যে দখল-দখল প্রতিযোগিতা চলে। নিজের পোস্টকে ফিচার করার জন্য নিজে থেকেই ব্লগ টিমকে অনুরোধ করতে দেখা গেছে ব্লগারদের। অন্য ব্লগাররা মন্তব্য ঘরে একটি পোস্টকে ফিচার করার অনুরোধ জানালেই বরং লেখকের গ্রহণযোগ্য বৃদ্ধি পায়। কখনো কখনো ব্লগারদের এমন বলতে দেখা গেছে, এই পোস্টটি লিখতে অনেক কষ্ট হয়েছে, তাই যেন এটি ব্যানারে থাকে। বাংলা ব্লগে অসংখ্য অসংখ্য বিশ্লেষণধর্মী, তথ্যপূর্ণ পোস্ট রয়েছে, নিশ্চয়ই প্রত্যেকেই অনেক পড়াশোনা করেই লিখেছেন সে সব। অন্য দিকে বিডিনিউজ২৪ ব্লগে প্রায় প্রতিদিনই প্রধান ব্যানার পরিবর্তন হয়। ফলে কারো না কারো পোস্ট তো ফিচার পোস্ট ক্যাটাগরিতে নির্বাচিত হবেই। কিন্তু নিজের পোস্টকে ফিচারে বা টপ নিউজে না দেখলে তা নিয়ে ব্লগে ছেলেমানুষি ক্ষোভ প্রকাশ করেছি আমরা। মানে ব্লগে ফিচার পোস্টে নিজের পোস্ট ঝুলানোটা আমাদের ইদানীংকার লক্ষ্য হয়ে উঠেছে ক্রমশ। একই ব্লগারের লেখা ঘন ঘন ফিচার পোস্টে আসাটা ব্লগের জন্য কতটা কৃতিত্বের? সবাইকেই সুযোগ দেয়া উচিৎ নিশ্চয়ই। তাছাড়া, যেহেতু সিটিজেন জার্নালিজম ভিত্তিক ব্লগ, তাই প্রয়োজনে বিশাল বিশ্লেষণধর্মী পোস্টের বদলে খবর ভিত্তিক কোন স্বল্প দৈর্ঘ্যের পোস্টও ফিচার হতে পারে বলে মনে করি।

ব্লগাররা কি জানেন আমাদের পোস্টগুলো থেকে নির্বাচিত ৫টি পোস্টের শিরোনাম বিডিনিউজ২৪ ডট কমের বিভিন্ন ক্যাটাগরি পাতায় রাখা হয়?

***
একটা ভিডিও দেখেছিলাম বেশ কিছুদিন আগে। ওতে একটা বটম লাইন ছিল ‘রাইট ওয়ার্ড ফর দ্য রাইট ওয়ার্ল্ড’ । এ কথাটা এখানেও বলার সুযোগ করে দিলেন প্রিয় ব্লগাররা। সিটিজেন জার্নালিজম ভিত্তিক এই প্লাটফর্মে আমাদের ’রাইট এটিটিউড’ দেখানোর প্রয়োজন আছে। যতদূর বুঝি কেবল একটি জমাটে ব্লগের লক্ষ্য নিয়েই এই ব্লগের সূত্রপাত হয়নি, এক্সক্লুসিভ নিউজ নিয়ে সিটিজেন জার্নালিজম চর্চাকে প্রসারিত করাটাই উদ্দেশ্য। কর্তৃপক্ষকে এই লক্ষ্যে সজাগ থাকতে হবে অবশ্যই, কিন্তু এই রাইট প্লাটফর্মে ব্লগারদের রাইট এটিটিউড বিনে মূল লক্ষ্য মাঠে মারা গেলে দায়ভার কতটা কর্তৃপক্ষ নেবেন আর কতটা এ ব্লগের ব্লগাররা নেবেন?

যদি বছর শেষের সালতামামিতে সকল বাংলা ব্লগ নিয়ে বিশ্লেষণ কালে বিডিনিউজ২৪ ব্লগকে এর লক্ষ্যের বিচারে একভাবে পিছিয়ে পড়া ব্লগ গণ্য করে ব্যর্থ ব্লগ উপাধি দেয়া হয়, তবে বিডিনিউজ২৪ ব্লগের নিয়মিত ব্লগার হিসেবে আপনি কিভাবে সেই মতামতকে খণ্ডাবেন?

***
উৎসর্গ: বিডিনিউজ টোয়েন্টি ফোর ব্লগের সকল প্রিয় ব্লগারদের।