ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

একবার মনে করে দেখুন তো, আমরা আমাদের স্কুল লাইফে ইংরেজি কিভাবে শিখতাম । আমার মনে আছে ৪র্থ এবং ৫ম শ্রেণীতে থাকা কালে ইংরেজি গ্রামার নিয়ে কত বিরক্তি কাজ করত। তখন তো ইংরেজি এর মত কঠিন কোন পড়ার বিষয় হতেই পারে না । কিন্তু আজ বুঝি, সেইসময়ের এমন চিন্তা ভাবনার মূলে ছিলো আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থা এবং মুখস্থ করে পরীক্ষা দেয়ার প্রবণতা । আজও ৮ম, ৯ম শ্রেণীর ছাত্রছাত্রীরা ইংরেজিতে নিজের ভাষায় কিছু লিখতে দিলে হিমশিম খায় । এই অবস্থার পিছনে কি কারণ বলতে পারেন??

স্কুলের বেশিরভাগ ইংরেজি শিক্ষকেরা শুধু নির্দিষ্ট সিলেবাসের উপর জোর দেয় । কিন্তু সত্যি বলতে, শুধু একটি টপিক এর উপর একেক সময়ে পড়ে ইংরেজির উপর সঠিক আগ্রহ টা জন্মায় না । আর সেই জন্যই, আমরা স্কুল কলেজ শেষ করে আসলেও ইংরেজিতে অনেক দুর্বলতা থাকে । এই দুর্বলতা কাটিয়ে ইংরেজিতে পারদর্শী হয়ে ওঠার অন্যতম শ্রেষ্ঠ এবং মোক্ষম মাধ্যম হতে পারে IELTS ।

IELTS কী?
IELTS এর পূর্ণ মানে হলো International English Language Testing System, অর্থাৎ IELTS একটি আন্তর্জাতিক মানে সার্টিফিকেট কোর্স যেখানে আপনার ইংরেজি ভাষার উপর দক্ষতা পরিমাপ করা হয় । আমাদের অনেকের ই মনের মধ্যে ইংরেজি নিয়ে একটু সন্দেহ বা আত্নবিশ্বাসের অভাব থাকে । কিন্তু IELTS পরীক্ষার মাধ্যমে আপনি ইংরেজি নিয়ে আপনার মনের সব ভয়, অনীহা এবং দুর্বলতা সহজেই কাঁটিয়ে উঠতে পারেন । মূলত সম্পূর্ণ পরীক্ষা প্রক্রিয়াটি এমন স্বতঃস্ফূর্ততার মধ্যে দিয়ে শেষ করা হয় যে, ইংরেজি ভাষার প্রতি আপনার আগ্রহ জন্মাবে এবং পরবর্তীতে IELTS পরীক্ষায় ভালো করার জন্য প্রস্তুতি নিতেও দ্বিধাবোধ করবেন না ।
পরীক্ষার মাধ্যমে ইংরেজি ভাষার প্রধান ৪টি বিষয়ের উপর নজর দেয়া হয়, আর সেগুলো হলো Reading, Writing, Listening এবং Speaking । প্রতিটি বিভাগের উপর আলাদা আলাদা পরীক্ষা নেয়া হয় এবং আলাদা স্কোর দেয়া হয় । সবশেষে ৪টি স্কোর এর গড় করে IELTS এর ফাইনাল স্কোর দেয়া হয় । ব্রিটিশ কাউন্সিল বাংলাদেশে IELTS পরীক্ষার আয়োজন করে থাকে । আর আপনি যদি ইংরেজি ভাষায় দুর্বল হয়ে থাকেন, তাহলে চাইলে IELTS পরীক্ষার জন্য কোচিংও করতে পারেন । ব্রিটিশ কাউন্সিল, সাইফুরস, উইংস সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান IELTS পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতিমূলক কোর্স করিয়ে থাকে । তবে আপনি চাইলে নিজে নিজেও প্রস্তুতি নিতে পারেন ।

কেন করবেন IELTS?
এটা হয়তোবা আমার সবচেয়ে বেশিবার শোনা প্রশ্নের মধ্যে অন্যতম । এটা সত্যি যে আমরা বেশিরভাগ সময় বিশ্বাস করি যে বাহিরের দেশে পড়াশোনা বা ক্যারিয়ার গড়তে যেতে চাইলেই শুধু IELTS করতে হয় । ইংরেজি ভাষাভাষী দেশ যেমন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া, কানাডায় যেতে চাইলে আপনি যেখানে গিয়ে ঠিকমত ইংরেজি ভাষায় সকল কাজ করতে পারবেন কিনা তা IELTS এর মাধ্যমে পরীক্ষা করে দেখা হয় । কিন্তু আপনি যদি দেশের বাহিরে যেতে নাও চান, তবু আমি মনে করি IELTS করা উচিৎ । কেননা একটি IELTS এর স্কোর ইংরেজি ভাষার উপর আপনার পারদর্শিতার মাপকাঠি স্বরূপ এবং যেকোন স্থানে গ্রহনযোগ্যতা বাড়ানোর জন্য যথেষ্ট উপযোগী ।