ক্যাটেগরিঃ গণমাধ্যম

কোন একটি কাজ বার বার না করতে অনুরোধ করার পরও তা স্বপ্রণোদিত হয়ে পূনরায় করাকে বলে চক্ষুলজ্জাহীন। আর এই ধরনের কাজ যে বা যারা করে থাকে তাদের খাটি বাংলায় বলা হয় বেহায়া। আর আমাদের বর্তমান আধুনিক সমাজের এক প্রতিষ্ঠিত বেহায়া হলো দৈনিক প্রথম আলো্।আজ সকালবেলা পত্রিকা হাতে শেষ পাতায় যে খবরটি চোখে পরল তা হলো ”যৌন নিপীড়ন প্রতিবাদী একজন ও কিছু ঘটনা” শিরোনামে একটি লেখা। শিরোনাম পড়েই আন্দাজ করলাম মানুষকে বোকা বানানোর চেষ্টায় নতুন কোন ফাঁদ। পড়ে যা বুঝলাম তা হলো তারা(প্রথম আলো) অনেকটা গ্যারান্টি দিয়েই সাফাই গাওয়া হচ্ছে সেই বিশ্ববিদ্যালয়ের।আসলেই নিজের অনুমানকে তখন প্রসংশা না করে পারা যায়না। এদের কথার কিছু অংশ “ইউল্যাব কর্তৃপক্ষ গতকাল সোমবার প্রথম আলোকে এ বিষয়ে বলে, ওই রাতে একজন নারী ইভ টিজিংয়ের শিকার হয়েছেন। কিন্তু অভিযুক্ত ছেলেরা ইউল্যাবের ছাত্র কি না, সে বিষয়ে কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। গতকাল ঘটনাস্থলের চায়ের দোকানদার মো. ইলিয়াস বলেন, ‘মেয়েছেলে বিষয়ে কিছু একটা হয়েছে, কিন্তু কী হয়েছে, আমি অত জানি না।” যার অর্থ ব্লগার সর্বনাশা একজন ডাহা মিথ্যাবাদী। হায়রে প্রথম আলো আর কতবার নিজেদের বিবেক বিসর্জন দিবে তোমরা।

হ্যাঁ এটা ঠিক যে আমাদের অনেকেই প্রথম আলো পত্রিকাটি নিয়মিত পড়ে কিন্তু আমার বিশ্বাস পাঠক সমাজের অর্ধেকেরও বেশি এর খবর ভিত্তিহীন বলেই জানে। এখন প্রশ্ন হল কী করে সম্ভব? এটা সম্ভব এভাবে অনেকেই আমার মত পড়ে দৈনিক কতগুলো ডাহা মিথ্যা এতে আছে তা গননা করতে। বিক্রিতে রেকর্ড করার মানে আপনি আর্থিকভাবে লাভ করছেন কিন্তু তা কতটুকু গ্রহনযোগ্য তা পাঠকই বলতে পারে। আর আমার ধারনা প্রথম আলোর আলোচনা্র চাইতে সমালোচনাই বেশি হয়। আর এই সমালোচনার খাতিরেই প্রথম আলোর রেকর্ড পরিমান বিক্রি হয়।

বর্তমানে বাংলাদেশে যে সংখ্যার লোকজন ইন্টারনেট ব্যবহার করে তার ৫০%-ও মনে হয় ব্লগের সাথে সম্পর্ক রাখেনা। এর একটি কারন হয় তাদের সময় নেই না হয় বুঝেই না ব্লগ কি জিনিস। আর যারা ব্লগ পড়ে বা লিখে আমার মতে তারা দেশকে নিয়ে গভীরভাবে চিন্তা করেই বলে লিখে। তা না হলে খামোখা সময় নষ্ট কেও করেনা। আর প্রথম আলো একজন বিবেক সম্পন্ন ব্লগার সর্বনাশাকে মিথ্যাবাদী প্রমানে ব্যস্ত হয়ে উঠেছে। ওরা শুধু তাকেই অপমান করতে চায়নি বরং ওদের এই ষরযন্ত্র সমগ্র ব্লগারদের বিরুদ্ধে। তাই এখনি সময় ওদের উপযুক্ত শিক্ষা দেয়ার।এরা খুব বেশি অভ্যস্ত হয়ে গিয়েছে অন্যায়কারীর পক্ষ নেয়ায় যা অতীতেও করেছে।

ধন্যবাদ সবাইকে।