ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

বাংলায় প্রথাগত রাজপরিবার নেই তবে দুটি প্রধান দল বিশেষ রাজপরিবার ঐতিহ্য বজায় রেখেছে। আওয়ামীলীগ ও বি এন পি প্রথাগত রাজপরিবার ঐতিহ্যের স্মারক। তবে এটা অলিখিত, অদেখা ও অচেনা। আরেকটি রাজপরিবার যা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সাহেবের জাতীয় পার্টি বর্তমানে অস্তিত্তের সাথে পাল্লা দিয়ে কোন রকম টিকে আছে।

এরা রাজপরিবার কারন পারিবারিক ভাবে নেতৃত্ব, ক্ষমতার অধিকারী। তবে আওয়ামী লীগ ও বি এন পি প্রথাগত রাজপরিবারের দ্বন্দ্বে বড় অসহায় বাংলার জনগণ। তবে জনগণের কাছে তাদের এমন বিকল্প আসে যা ভোটের রাজনীতিতে ভোট পায়না আর জনগণ তাদের চিনেনা।

রাষ্ট্রের ক্ষমতা যেন আঠার মত লেগে আছে ক্ষমতাসীনদের কাছে, যা কেউ সহজে ছাড়তে নারাজ। বাংলাদেশে রাজনীতিতে মানুষের দাম নেই, আদর্শ টাকার কাছে হারিয়ে যায় আর চাই শুধু রাষ্ট্রের ক্ষমতা। “হরতাল অবরোধ বাংলাদেশের জনগণের স্বার্থে” যা সব রাজনৈতিক দলের  বক্তব্য। রাজনৈতিক দল গুলোর কাছে বাংলাদেশের মানুষ যেন রাস্তার গরু ছাগল যেভাবে খুশি সেভাবে ব্যাবহার, আর সাধারণ মানুষের উপকারে তাদের জন্য হরতাল অবরোধ। আর তাতে সাধারণ মানুষের ক্ষতি দেশের ক্ষতি ছাড়া ভাল কোন কিছু অর্জন হয়নি।

আওয়ামীলীগ ১০০+ হরতাল করে সফল তাতে কী? এবার বিএনপি ১০০++ মানুষ পুড়িয়ে মেরে সফলতা পেতে মরিয়া, জনগণের দুর্ভোগ তা রাজনৈতিক দলের কাছে রাস্তার গরু ছাগলের দুর্ভোগ। জনগণের আর্তনাদ এই গণ্ডার চামড়া পরিহিত রাজনৈতিক দলের নেতার কাছে পৌঁছায় না।

রাজনৈতিক দলের নিশ্চয়ই একদিন মস্তিস্কে ঘিলু থাকলে তারা শুধু ক্ষমতা, টাকার জন্য না দৌড়ে জনগণের সেবার কাজে নিজেকে আত্মনিয়োগ করতে পারে। তবে সেটা কবে কেউ জানে না।