ক্যাটেগরিঃ ধর্ম বিষয়ক

 

আমাদের দেশে অনেক পীর মাজারে কি হয় তা দেখার সৌভাগ্য আমার হয়েছে, কবর সিজদা, নজর নেওয়াজ, মাজারে সুতা বাঁধাই করা, বাদরের মত লাফ দেয়া সহ অনেক আজব ঘটনা। আমাদের দেশের সরকার পীর- মাজার আকিদার বিরুদ্ধে নীরব। পীর-মাজার খাদেমের কোটি কোটি টাকা থাকলেও, কিন্তু ভালো আলেমের আর্থিক অবস্থা ভালো নয়।

সিজদা একমাত্র আল্লাহ এর জন্য নির্দিষ্ট। যারা কবর সিজদা করছে, তারা শিরকে লিপ্ত হচ্ছে। এমনকি একজন এস এস সি পরীক্ষায় তিন বার ফেল করার পর, আবার পীর-মাজারে সুতা বেধে এসেছিল, আর তার ধারনা যে এবার সে পাস করবে, ফলাফল আবার ফেল। পরীক্ষায় পাস – ফেল করার মালিক আল্লাহ, আল্লাহ এর প্রতি ভরসা না করে, পড়াশুনা না করে, পীর-মাজারে সুতা বেধে কি পরীক্ষায় পাস করা যায়।

যে কোন প্রকারে ক্ষমতায় যাওয়া কোন সঠিক আদর্শ হতে পারেনা। ধরা যাক কোন ইসলামি দল যে কোন প্রকারে ক্ষমতায় গেল, কিন্তু চারপাশে মাজার পূজা, কবর পূজা, কবর সিজদা, নজর নেওয়াজ, মাজারে সুতা বাঁধাই করা ইত্যাদি, আর এগুলো থামাবেন কি করে, জনগণের সমর্থন না থাকলে। সাধারন জনগণকে সচেতন করা দরকার যাতে পীর- মাজার আকিদা বাংলাদেশ থেকে উচ্ছেদ করা যায়।

আমরা অনেকে মনে করি শিয়া অনুসারী ইরান ইসলামের জন্য অনেক কিছু করছে, আসলে শিয়া অনুসারী ইরান ইসলামি শরিয়তের সবচেয়ে বড় শত্রু। শিয়া আকিদা কোরআন এবং রাসুল মুহাম্মদ (সাঃ) আদর্শ বিরোধী।

আমাদের দেশে ও পৃথিবীতে দরকার ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়, মদিনা এর মত অনেক বিশ্ববিদ্যালয়। ইসলামিক জ্ঞান যাতে ছড়িয়ে পরতে পারে সব জায়গায়। আমাদের উচিত যতটুকু ইসলামিক জ্ঞান প্রচার হয় টা অল্প হলেও যেন সঠিক ইসলামিক জ্ঞান প্রচার হয়, সেদিকে নজর দেয়া দরকার।