ক্যাটেগরিঃ সেলুলয়েড

অনেক দিনের ইচ্ছা চলচ্চিত্র সমালোচনা নিয়ে কিছু লিখবো কিন্তু অল্প জ্ঞান নিয়ে বেশি কিছু লেখার সাহস হচ্ছে না বলে লেখি নি, তার পরেও সাহস করে আজকে কিছু লিখতে বসলাম।

কোন দেশের চলচ্চিত্র নিয়ে সমালোচনা করতে হলে সে দেশের চলচ্চিত্রের অবস্থা সম্পর্কে কিছুটা প্রাথমিক ধারনা থাকা দরকার। প্রাথমিক ধারনা বলতে এখানে চলচ্চিত্র তৈরির সু্যোগ সুবিধা, চলচ্চিত্রের বাজার, সিনেমা প্রেমিকদের রুচি, আত্ম-সামাজিক অবস্থা, চলচ্চিত্রের নির্মান কৌশল ও চলচ্চিত্র নির্মাতাদের দক্ষতা ও সীমাবদ্ধতা সর্ম্পকে জানা দরকার; যা একটি দেশের চলচ্চিত্র নিয়ে সমালোচনা করতে অনেকটা সহায়তা করে। উদাহরণস্বরূপ বলা বলা যায়, আপনি যদি ঢালিউড এর চলচ্চিত্র সমালোচনা করতে গিয়ে, ঐ দেশের চলচ্চিত্রের আত্ম-সামাজিক অবস্থা চিন্তা না করে, হলিউঢ এর চলচ্চিত্রের সমালোচনা স্টাইলে ঢালিউড ও সমালোচনা করে থাকেন, তবে এ ক্ষেত্রে আপনার সমালোচনাটা অনেকটা ব্যর্থ। কারন এখানে দুই দেশের চলচ্চিত্রের অবস্থান দু রকম। আর চলচ্চিত্র সমালোচনা গিয়ে চলচ্চিত্রের প্রতিটি অঙ্গকে (গল্প, প্লট, টাইম, প্লেইচ, মেকিং) সমান গুরুত্ব দেওয়া উচিত।

আমাদের দেশে কিছু ক্ষেত্রে দেখা যায়; চলচ্চিত্র সমালোকরা চলচ্চিত্র সমালোচনা করতে গিয়ে চলচ্চিত্রের প্রতিকূল অবস্থার কথা চিন্তা না করে বরং তারা চলচ্চিত্র সম্পর্কে নির্মম সমালোচনা করে থাকেন। যা অনেকটা বেগতীত ও অবাঞ্ছনীয়। তারা হয়তো ভুলে যায় আমাদের চলচ্চিত্রের রুগ্নতার কথা, তাই তারা আমাদের চলচ্চিত্রের সীমাবদ্ধতার কথা চিন্তা না করে, তাদের স্ট্যান্ডার্ড বজায় রেখে চলচ্চিত্র সমালোচনা করে থাকেন।