ক্যাটেগরিঃ সেলুলয়েড

অনেকদিন ধরেই শোনা যাচ্ছিল বিজয়ের মাসে ভারতীয় বাংলা ছায়াছবি দেশের প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শন করা হবে। এবিষয়ে চলচ্চিত্র অঙ্গনের সবকটি প্রতিষ্ঠাইন প্রতিবাদ করেছে। এমনি এই সংগঠণগুলো ভারতীয় ছবি প্রদর্শন না করার জন্য আন্দোলনের কর্মসূচীও ঘোষণা করেছিল। কিন্তু তাদের মাথার উপর ছবি প্রদর্শনের পক্ষে আদালাতের রায় আসায় তারা অসহায় হয়ে আন্দোলন কর্মসূচী প্রত্যাহার করতে বাধ্য হলো। আদালতের রায়ের বিষয়ে কোন মন্তব্য করা যায় না। এখন প্রশ্নহলো, আদালতের রায় কি জনগণের কল্যাণের জন্য নাকি সরকার বা বিশেষ গোষ্ঠিকে সন্তুষ্ট করার জন্য। যেখানে ভারতীয় ছবি প্রদর্শনের জন্য চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট সকল ব্যাক্তি এবং সচেতন সমাজ বিরোধীতা করছে সেখানে সেখানে আদালতের এ রায় কি প্রশ্নবিদ্ধ নয় ? গত এক দশকে আমাদের চলচ্চিত্র শিল্প খুড়িয়ে খুড়িয়ে চলছে। নানা সমস্যায় জর্জিত। এঅবস্থায় ভারতীয় চলচ্চিত্রের প্রবাহে কি দেশের এ শিল্পটিকে পুরোপুরি ধংস করতে সাহয্য করা হচ্ছে না ? যারা ভারতীয় চলচ্চিত্র আমদানি করছে আমি তাদের দোষ দিতে চাই না। তারা ব্যবসায়ী, মুনাফার জন্য সুযোগ পেলে তা করবে। কিন্তু সরকার কেন কোন যুক্তিতে ভারতীয় চলচ্চিত্র আমদানীর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। যারা ভারতীয় চলচ্চিত্র পছন্দ করে সেসব ব্যক্তি এসব ছবির সিডি কিনে বাড়িতে দেখতে পারে। এসব ব্যক্তি সাধারণত এখন হলে আসে না। আর ভারতীয় চলচ্চিত্র প্রদর্শনের ফলে তারা হলে আসবে তা ভাবা যায় না। কারণ হলে না আসার একটি প্রধান কারণ হলগুলোর পরিবেশ। কিন্তু যারা হলে যাচ্ছে তারাতো বাংলা ছচি দেখেই মজা পাচ্ছে। তারাতো ভারতীয় ছবি চাচ্ছে না। যখন ভারতীয় ছবি প্রদর্শন করা হবে তখন এসব দর্শক আগ্রহ ভরে ভারতীয় ছবি দেখবে। তারা ছবির গুনগত মান যাচাই করবে না বা তারা ছবির মান যাচাই করে না।

আর ভারতীয় বাংলা ছবি আমাদের ছবির চেয়ে ভালো মানের একথা হয়তো বলা যাবে না। আমি ছবির লোক না, তবে যারা ছবির সাথে জড়িত তাদের কাছে শুনেছি ভারতীয় বাংলা ছবির মান আমাদের চেয়ে উন্নত বলা যাবে না। আর মানের কথা যদি বলা হয় তাহলে ভারতীয় ছবি কেন? পৃথিবীর বিখ্যাত ছবিগুলো প্রদর্শনের জন্য আনুমোতি দেযা হোক। বিশ্বে এখন ইরানী চলচ্চিত্রের বেশ নাম । মুসলিম সংস্কৃতির দেশ হওয়ায় তাদের সাথে আমাদের অনেক বিষয়ই মিলে যায়। তাছাড়া কিছু ইরানী চলচ্চিত্র বাংলায় ডাবিং করে কয়েকটি চ্যানেলে দেখানোর পর সাধারণ মানুষ সেগুলো খুব ভালোভাবেই গ্রহণ করেছে। এছাড়া ফ্রান্স, তুরষ্ক, গ্রীসসহ যারা ভালো ছবি তৈরী করে তাদের ছবিও দেখার ব্যবস্থা করা হোক।