ক্যাটেগরিঃ জনজীবন

 
1+cover

বাড়ি ছেড়ে ঢাকা আসা সেই প্রায় ১২/১৩ বছর আগে, মেস জীবন, এরপর ইউনিভার্সিটির হল জীবন পার হয়ে শুরু হয় পুনরায় ভাড়া বাসার জীবন। গত ৬ বছর বিভিন্ন বাড়া বাসায় এক বছর কিংবা দুই বছর করে কাটালাম। আগামী মাসে নতুন একটা বাসায় উঠব। কিন্তু এবার বাসা পালটানো একটু আলাদা কারণ এখন যে বাসায় আছি সেই বাসায় গত ফেব্রুয়ারী মাস থেকে নতুন জীবন শুরু করেছিলাম। বিয়ের পর বাড়ি থেকে এই বাসায় এসে উঠেছিলাম। দুই জনের সংসার প্রায় নতুন আর এক ফেব্রুয়ারী ছুই ছুই। কত কত স্মৃতি আমাদের এই বাসায়, হাসি – আনন্দ – বিষন্নতা হরেক রকমের মোড়কে মুড়ানো দিন গুলো।

আমার ফেসবুকে একাউন্টে লিখেছিলাম আমি এখনো আমার সেই ঢাকার আসার আগের আমাদের নিজের বাড়ির দিন গুলোতে প্রায় ফিরে ফিরে যায় মাঝে মাঝে। কিন্তু আমাদের এই ভাড়া বাসার কিংবা ভাড়াটিয়া জীবন এর স্মৃতিগুলো কি হবে। আমি হয়তো আমদের এই এখনকার ভাড়া করা ফ্লাটে আর ফিরে আসব না। আমাদের রেখে যাওয়া স্মৃতিগুল কি এই বাসার দেওয়ালে লেগে থাকবে। আমরা নতুন আর একটি বাসায় উঠব, এরপর হয় দুই এক বছর পর আবার নতুন, আবার নতুন। আমরা এই ঢাকা শহরে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন মালিকের বাসায় আমাদের আদরের যত্নের স্মৃতিগুলো ফেলে রেখে যাব। ঢাকায় নিজেদের ফ্লাট আছে এই রকম মানুষ নিতান্তই হাতে গোনা, ১০০% বৈধ টাকা দিয়ে ফ্লাট কেনা কত খানি কঠিন তা যারা অবৈধ টাকা দিয়ে কিনে তারা খুব ভালো করেই বুঝতে পারে।

ঢাকায় সামান্য ভালো থাকার জন্য যে পরিমান খরচ করতে হয় তা বেশির ভাগ মধ্যবিত্ত ফ্যামিলির জন্য কষ্টসাধ্য। প্রতিবছর বাসার ভাড়া বাড়ে, যেমন ধরুন আপনার বাজেট যদি হয় ১৫ হাজার আপনার পছন্দের বাসার ভাড়া চাইবে ২০, যদি ২০ হয় তাহলে ২৫ এই রকম। মানে প্রতিনিয়ত আপনি আপনাকে শুধু ঢাকায় থাকার জন্য বাড়িওয়ালাকে টাকা দিয়েই যেতে হবে। দুই এক বছর পর পর আপনার সব স্মৃতি রেখে আবার নতুন ফ্লাটে যেতে হবে। আমার যেমন একটা ছোট বেলার গল্প আছে , আমাদের নিজেদের বাড়িতে আমি বড় হয়েছি, বাড়ির উঠানে বসে খেলেছি কিন্তু আমার সন্তানের স্মৃতিতে কি থাকবে। আমাদের প্রতিদিন গল্পগুলোর সাথে আমাদের আবাস স্থলের একটা যে বড় সংযোগ তা যদি একটা দড়ির সাথে তুলনা করি তাহলে দেখা যাবে শতবার ছিড়ে যাওয়া একটি দড়ি বার বার গিট্টু দিয়ে যুক্ত করা।

আমি সব সময় আমার ঢাকার জীবন উপভোগ করি কিন্তু আমার এই ভাড়াটিয়া জীবন আমার কাছে হাস্যকর। আমরা একটা হাস্যকর ভাড়াটিয়া জীবন যাপন করি।

ধন্যবাদ