ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

সবাই মন থিকা দোয়া কইরেন, মান-ইজ্জত যা যাওয়ার তাতো যাইবোই,তারপরও যাতে সেতুটা হয় সেই চেষ্টাই দুদকের করা উচিত আর কারণটাও খুবই পরিষ্কার,
বিশ্ব ব্যাংকের বসেরা নাকি আগামীকাল ঘুষের পূর্ণাঙ্গ লিস্টি নিয়া আসতাছে,

হার্টের ডাক্তারসহ একটা অ্যাম্বুলেন্স দুদক কার্যালয়ে সবসময় স্ট্যান্ডবাই রাখা উচিত সাবেক উপদেষ্টা ডঃ মসিউর সাহেবের জন্য-শোনা যাইতেছে বসেগো উপস্থিতিতেই নাকি উনারে জিজ্ঞাসাবাদ করা হইবো,
উনার উপর দিয়া যা ধকল যাইতেছে আর যে হুমকি উনি কয়দিন আগেই দিছেন তাতে বিষয়টা সিরিয়াসলি এখন দুদকের ভাবা উচিত।

জটিল রোগে আক্রান্ত পদ্মা সেতু প্রোজেক্টের এইটাই জীবনের শেষ চিকিৎসা মনে কইরা দুদকের উচিত সব ঘুষখোর-দুর্নীতিবাজদের বিশ্ব ব্যাংকের সামনেই জেলে ঢুকানো,
হেলায় এই সুযোগ হারাইয়া পরে শতবার আফসোস করিলেও আর লাভ হইবে না।

কৃতজ্ঞতা: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম</a