ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

সেই অনেক দিন আগের কথা। জানতাম খালেদার দু’টি সন্তান আছে। একজন নাকি পাইলট। পরে জানলাম বিমান উনি চালান না। তবে কেন চালান না জানি না। তাকে আমি প্রথম দেখি নিউজ পেপারে। সালটা মনে পরছে না। কোন এক হরতাল এর সময় বড় এবং ছোট যুবরাজ মিলে ক্রিকেট খেলার ছবি। সেই দেখা তার প্রথম ছবি। তারপর সে অনেক কাহিনী। শুনলাম কোকো ১,২,৩,৪ থেকে ১০ পর্যন্ত ছিল। আমরা হলাম সাধারন জনগণ বুঝি কম খালি দেখি, পরে এও দেখলাম উনি নাকি মানিলন্ডারিং করছেন। সেটাও দেখলাম পেপারে। আবার দেখলাম বিদেশে গিয়ে থাকেন। তাও দেখলাম। আবার ভাবি, চুরি করলে তাকে আবার দেশের বাহিরে পাঠিয়ে দেয়, এটা আবার কোন কানুন? তারপর ভাবি উনারা হল রাজা-বাদশা। আর রাজাবাদশাদের জীবন এমন হয়। আমরা একবার শুনে বলি ১০টা জাহাজের টাকা পাইল কই? আবার বলি খালেদার পোলা চুরি করে বিদেশ যায় ক্যমনে? তবুও জনগণ তাহাকে শেষ বিদায় দিতে কোন ধরনের কার্পণ্য করেনি এবং জনগণরা সাধারণত রাজাবাদশাদের তাই করে থাকে। এখন রাজাদের উচিৎ জনগণ কে তাদের ভালবাসার প্রতিদান দেওয়া। ধন্যবাদ সবাইকে।

মান্নান,আলজেরিয়া থেকে।