ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

দেশ আজ যে অবস্থায় গিয়ে দাঁড়িয়েছে এই পরিস্তিতি জন্য দায়ী কে? সেই প্রশ্নের উত্তর খোঁজার সময় এখন নয়। এখন সময় হচ্ছে এই জলন্ত আগুন কে প্রতিরোধ করা সেইটা কি ভাবে? প্রথম হল অগ্নি নিরোধক কাপড় পরিধান করা, বা ফায়ার ফ্রুপ গাড়ী ব্যবহার করা, না হলে পালিয়ে বেড়ানো কিন্তু যাবেন কোথায়? দেশে ছেড়েঁ যাবেন কোথায় এইটা তো আর ৭১ না প্রতিবেশী দেশের কাছে আশ্রয় প্রার্থনা করবেন।অগ্নিনিরোধক কাপড় না গাড়ী কোনটায় আমাদের দ্বারা সম্বব নয়। তাহলে কি আর করা সুসাইড করবেন কি? তা ও সম্বব নয়। এমন পরিস্থিতি কি আগে কখনো হয়েছে কি হলে সেই টা কখন? আসুন সেই উত্তর খুজি, এই টা কি ৯০/৯৬/২০০১/২০০৮ কোন টা কে বেচে নেবেন? আমার ত মনে হচ্ছে এর উত্তর এখানে নাই এখন অবস্থা হচ্ছে ১৯৭১ এর অবস্থান, ৭১ এ পাক হানাদার বাহিনী নিরিহ মানুষ কে হত্যা করেছিল নির্বিচারে আজ ও তাই হচ্ছে আমাদের দেশে। ৭১ এ ছিল পাক হানাদার, আজ আছে তাদের দোসর রা। কি অপরাধ ছিল আমাদের? কি অপরাধ ছিল যারা অগ্নি দ্গদ হয়ে অকালে চির বিদায় নিয়ে নিল।দুঃখ শুধু একটায় কখনো কি দেখেছেন একটা কুকুর একটা কুকুর কে হত্যা করতে। যে কাজ টা পশুরা করেনি আজ তা আমরা অনায়াসে করে যাচ্ছি তাই আজ যাহারা এই পেট্রল বোমা মারছেন তাদের কে একটায় অনূরোধ করছি একবার ভাবুন বিবেক দিয়ে।একসময় বই য়ে পড়েছিলাম বিবেকহীন মানূষ পশুর সমান আজ আমাদের মনে হচ্ছে পশুর চেয়ে অধম হওয়া উচিৎ ছিল বাক্যটি। আমার অনেক বিজ্ঞ বন্ধুগন আজ ও বিভিন্ন রাজনিতীবীদদের দোষ দিয়ে গলা ফাটীয়ে ফেলছেন আমার কথা হল বাংলাদেশের কত পারসেণ্ট লোক রাজনিতীজিবী বড়জোর ৫% হবে আমরা যদি বাকি ৯৫% লোক কাল রাস্তায় নেমে যায় তাহলে কি এই ৫% লোক কি আমাদের জিম্মি করে রাজনিতী করতে পারে? কিন্ত আমরা নামবো না কারন আমরা তো বেঁচে আছি, কে আগুনে পুড়েঁ মরল, তাতে আমার কি আছে যায়।একথা ভেবে বসে থাকবেন না একদিন এই বোমা আপনার শরীরে ও পরতে পারে। তাই তাদের উদ্দেশ্যে বলছি এইভাবে আত্ম্যহতা না করে একবার বেরিয়ে আসুন রাস্তায় দেখবেন সব বন্যার স্রোতের মত ভাসিয়ে নিয়ে গেছে আর বুকে ধারন করুন ৭১ এ যেমন পেরেছি আজ ও পারব। আজ যেখানে কৃষক ভাইয়েরা যেখানে মাথার গাম পায়ে ফেলে দেশ কে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে তদ্রুপ শ্রমিক ভাইয়েরা, চালকভাইয়েরা,প্রবাসীভাইয়েরা,ডাক্তার ভাইয়েরা, সাংবাদিক ভাইয়েরা সবাই যার যার পেশায় নিয়োজিত থেকে দেশ কে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজ করে যাচ্ছেন সেখানে ওই ৫% রাজনিতীবিদ লোকদের জন্য আমাদের দেশ কে ধংশের মুখে ঠেলে দিতে পারিনা না আমরা। সুতরাং আর কালক্ষেপণ না করে দলাদলি না করে সবাই এক কাতারে এসে লড়ে উঠি প্রতিবাদ নয় প্রতিশোধ নেওয়ার লক্ষে, এগিয়ে যায় শেষ করে দিই এই রাজনীতিবিদদের এইভাবে মুক্তি ছিনিতে আনতে হবে।এখানে মানববন্দন আর হাঙ্গার স্ট্রাইক এ কোন কাজ হবে না তাই আর একটা যুদ্ধ না করলে বিজয় আসবে না।

ধন্যবাদ সবাই কে,মান্নান আলজেরিয়া থেকে।