ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

সংকট,সংকট এবং সংকটে আমাদের জীবন বিষাদময় করে তুলেছে।তার সাথে যোগ হয়েছে সংলাপ। এখন প্রশ্ন হচ্ছে সংলাপ আধো হবে কি না হলে কি বিষয়ে হবে? মধ্যবতী নির্বাচন নিয়ে সংলাপ হবে, কি ভাবে হবে এই নির্বাচন? তখন সরকার কে থাকবে এই সব দিক থেকে নির্বাচন প্রশ্নবোধক? কারন এই দুই দল কখনো এক সিদান্তে পৈছাঁতে পারে না। ১৯৯১ তে দেখেছি বিএনপি মেনে নেয়নি, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবী, ইহা নিয়ে অনেক কাঠগড় পুড়িয়ে আসলে কাঠগড় পুড়িয়ে বলব না, বলব মানূষ জন এর জীবন শেষ করে অনেক কষ্টে দেখা হল সেই তত্ত্বাবধায়ক এর। তারপর সেই একই নিয়মে কখনো এসেছে তত্ত্বাবধায়ক সরকার এর প্রধান ইস্যু কখনো এসেছে নির্বাচন কমিশন ইস্যু এইভাবে চলে গেল অনেক গুলি বছর কিন্তু আজ ও ২০ বছর পর সেই একই দাবীতে কয়লাক্ত রত্তাক্ত হচ্ছে প্রিয় বাংলাদেশের মানুষ।সবাই বলে সংলাপ হলে নাকি সমাধান হয়ে যাবে। দুই দলের মত পার্থক্য যখন বিশাল আকার এবং কেউ কারো নিতিতে বিশ্বাসী নয় সেখানে সংলাপে কোন কাজ হবে বলে আমার মনে হয় না।তার উদাহরণ স্বরূপ আমি এখানে উল্লেখ করতে পারি পূর্বে ঘঠে যাওয়া দুই মাহাসচিবের সংলাপ আমরা দেখেছি এতে জাতির কি উপকার হয়েছে? কিছু হয়নি শুধু সংলাপের কারনে সময় নষ্ট করে জাতি কে আর ও কঠিন মুখে পড়তে হয়েছে।তাই আমাদের কিছু কিছু বিশেষজ্ঞ্ররা যখন আমাদের কে সংলাপের কথা বলে জাতি কে আর ও ধংশের মুখে ঠেলে দিচ্ছেন তার কোন রুপ সন্দেহ নাই।ধরে নিই সংলাপ হচ্ছে বিনপি আওয়ামীলীগের মধ্যে প্রতিক্ষিত সংলাপ হয়ে গেল কি হবে এরা বলবে কেয়েরটেকার কেউ বলবে অন্তর্বর্তী সরকার কেউ নড়বে না তা হলে সংলাপ হয়ে কি হবে? বার বার তারা এইভাবে জনগণ কে বোকা বানাবে আর কেড়ে নেবে আমাদের মূল্যবান ভোট এবং ভোটের নামে কেঁড়ে নেবে আমাদের জীবন মাঝে মাঝে শুনি ৩য় পক্ষ আসছে কিন্ত কখন দেখতে পাব জানি না? নাকি এই জীবনে আর দেখাই হবে না ৩য় পক্ষ নামের সেই লোকটির। ভারতে যদি পারে চা ওয়ালা থেকে পিএম হতে, যদি পারে একজন ইনঞ্জিয়ার থেকে মুখ্যমন্ত্রী হতে তা হলে আমাদের দেশে কেন সম্বব হবে না। সকল পারিবারিক তন্ত্র এবং চোখরাঙ্গানো রাজনিতি কে ছুটির ঘণ্টা দিয়ে যেমন কেজিরিওয়াল প্রমান করে দিয়েছেন রাজনিতীর নামে ব্যবসার দিন শেষ। এই ব্যাবসায়ী রাজনীতির বিরুদ্দে শুধু কি কেজেরিওয়াল সচ্ছার হয়েছে নাকি সচ্ছার হয়েছে দিল্লীর জনগণ? আমার উত্তর হল জনগণ সচ্চার হয়েছে তাদের অধিকার সম্পর্কে তারা বুঝতে পেরেছে কুলশিত রাজনিতি কি, ধর্মীয় রাজনিতি কি? ব্যবসায়ী রাজনীতি কি? তাই তারা বাঘা বাঘা পুরানো দল কে ঘরে বসিয়ে নতুন ইতিহাস লিখেছে এবার আমার আপনার পালা এসে গেছে।নতুন কেজেরিওয়াল হয়ে উঠার।নতুন ইতিহাস লিখার।।ধন্যবাদ সবাই কে মান্নান আলজেরিয়া থেকে্‌।