ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

শীর্ষস্থানীয় নেতাদের পদত্যাগ , দল বদল ও সহিসংতার অভিযোগে মামলার আসামী হয়ে পলাতক থাকায় ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় বিএনপি’র রাজনীতিতে স্থবিরতা নেমে এসেছে । শীর্ষস্থানীয় নেতাদের দলীয় কর্মকান্ডে অনুপস্থিতির কারণে মধ্যম সারি ও তৃনমূল নেতা- কর্মীদের মাঝে হতাশা দেখা দিয়েছে । বিএনপি নেতা-কর্মীরা এখন রাজনৈতিক মাঠেতো নয়ই নিজ এলাকাতেই তাদের খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন । দলীয় সূত্রে জানা গেছে ,গত ১১ ফেব্রুয়ারী শহর বিএনপির সভাপতি ও পৌরসভার সাবেক মেয়র মানছুরুর রহমান খান রেজুন বার্ধক্যজনিত কারণ দেখিয়ে পদত্যাগ করেন । গত রবিবার উপজেলার বাঁশাটি ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি হাবিবুর রহমান রতন চলমান সংহিসংসতার রাজনীতি অপছন্দ হওয়ার কারণ দেখিয়ে পদত্যাগ করেন । এরআগে শহর বিএনপি’র সহ সভাপতি আব্দুল মান্নান জাতীয় পার্টিতে (এরশাদ) যোগ দেন । জাতীয় পার্টি সূত্রে জানা যায় , ইতিমধ্যে বিএনপি’ সহস্রাধিক নেতা- কর্মী বিএনপি ত্যাগ করে তাদের দলে যোগ দিয়েছেন । এদিকে উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি জাকির হোসেন বাবলু , সাধারণ সম্পাদক উপজেলা চেয়ারম্যান এএসএম জাকারিয়া হারুন শহরে ফায়ারসার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স , পাবলিক পরিবহন এবং নিমুরিয়ায় মুরগির গাড়িতে অগ্নিসংযোগের মামলার প্রধান আসামী হয়ে পলাতক রয়েছেন । ঘোগা ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান লেবু মুরগির গাড়ি পোড়ানো মামলায় গ্রেফতার হয়ে হাজতে রয়েছেন ।পদত্যাগী শহর বিএনপির সভাপতি মানছুরুর রহমান খান রেজুন জানান, আমার দুই ছেলে কানাডার নাগরিক । আমার বয়স হয়েছে । তাই শেষ বয়সে কানাডায় তাদের সাথে থাকতে চাই । পদত্যাগী হাবিবুর রহমান রতন জানান, রাজনীতি ভালো লাগছে না । তাই পদত্যাগ করেছি ।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধীক বিএনপি নেতা – কর্মী জানান, যারা পদত্যাগ ও দলত্যাগ করেছেন তারা সুবিধাবাসী ।নিজেদের বাঁচাতে তারা এপন্থা অবলম্বন করেছেন ।দু:সময়ে তাদের পাওয়া যায় না । সুসময়ে তারা দলীয় সকল সুবধা নিয়ে থাকেন ।