ক্যাটেগরিঃ প্রশাসনিক

mymensingh,1
ময়মনসিংহে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের বেলতলী এলাকায় বাসের ধাক্কায় যাত্রীবাহী একটি পিকআপ ভ্যান নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৯ জনে দাঁড়িয়েছে।

মঙ্গলবার ভোর ৬টার দিকে বেলতলী এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই পাঁচজন নিহত ও কমপক্ষে পনেরজন আহত হয়। পরে আহতদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরো তিনজনের মৃত্যু হয়।

mymensingh 2

নিহত আটজনের মধ্যে ছয়জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তাঁরা হলেন, জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার সারমারা গ্রামের রাসেল, ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার মোকামিয়া গ্রামের মিনারা বেগম, তাঁর স্বামী মোবারক হোসেন, হালুয়াঘাট উপহেজলার বাউশি গ্রামের শাহাদাত ও আত্মীয় খোকন মিয়া, আজিজুল, শামসুন্নাহার।

ময়মনসিংহ কোতোয়ালী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল জানান, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা দ্রুতগতির একটি বাস ভোরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের বেলতলী এলাকায় একটি যাত্রীবাহী পিকআপ ভ্যানকে পেছন দিক থেকে ধাক্কা দেয়।

এতে পিকআপ ভ্যানটি নিয়ন্ত্রন হারিয়ে মহাসড়কের পাশে খাদে পড়ে উল্টে যায়। এসময় ঘটনাস্থলেই পাঁচজন নিহত হয়। আহতদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরো তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

বাংলাদেশ এর প্রেক্ষাপটে নিরাপদ সড়ক কল্পনাই করা যায় না । কারণ সড়ক মহাসড়কে দুর্ঘটনা এখন নিত্য নৈমিত্তিক ব্যাপার। আমাদের দেশে সড়কে তাজা প্রাণ ঝড়ে যাওয়ার দৃষ্টান্ত বিশ্বে একটি বিরল বিষয় | নানা কারণে এ সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে । এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো – অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই , জরাজীর্ণ রাস্তাঘাট , ত্রুটিযুক্ত যানবাহন , যাত্রীবাহী গাড়িতে মালবহন ,মালবাহী গাড়িতে যাত্রীবাহন, ট্রাফিক নিয়মাবলী অমান্য করা , সড়কের উপর দোকান- পাট নির্মাণ , ইমারত নির্মাণের সামগ্রী রাখা, সড়কে গবাদী পশু গরু ছাগলের অবাধ বিচরণ ,নসিমন, করিমন চলাচল , ইত্যাদি । এ সকল কারণে বাংলাদেশে ঘনঘন সড়ক দুর্ঘটনা ঘটছে ।এ দুর্ঘটনা এড়ানোর জন্য যাতে অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই না হয় সে দিকে নজর দিতে হবে , জরাজীর্ণ রাস্তাঘাট মেরামত করতে হবে । ট্রাফিক নিয়ম মেনে চলতে হবে । সড়কের উপর দোকানপাট , রাজনৈতিক দলের অফিস নির্মাণ ও ইমারত নির্মাণের সামগ্রী রাখা বন্ধ রাখতে হবে , রাস্তায় গরু ছাগল নামানো থেকে বিরত রাখতে হবে এবং রাস্তাঘাটে চলাচলকারী ব্যক্তিবর্গের গণসচেতনতা সুষ্টি করতে হবে ।

বাংলাদেশের চলচিত্র অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন তার স্ত্রী জাহানারা কাঞ্চনের সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হওয়ার পর নিরাপদ সড়কের দাবীতে আন্দোলন শুরু করেন । আসলে এ দাবী আজ সকলের । সুতরাং সকলকে নিরাপদ সড়ক চলাচল নিশ্চিত করার ব্যাপারে উদ্যোগী হতে হবে । বেপরোয়া চালককে বোঝাতে হবে । অন্যথায় গাড়ি থামিয়ে ঐ চালককে নিকটস্থ পুলিশে সোপর্দ করতে হবে। তবেই সড়ক দুর্ঘটনার মতো মৃত্যু কূপের ফাঁদে পড়ে অগণিত মানুষকে মৃত্যুর কবল থেকে রক্ষা করা সম্ভব ।