ক্যাটেগরিঃ প্রকৃতি-পরিবেশ

 

ময়মনসিংহে মুক্তাগাছায় খাবারের সন্ধানে লোকালয়ে এসে ধৃত হয়েছে বিড়ল প্রাজাতির প্রাণী একটি বন বিড়াল। গতকাল সোমবার ভোরে বন বিড়ালটিকে ফাঁদে ফেলে ধরা হয় উপজেলার ঝনকা গ্রামে। ঐদিন বিকালে চাঁনপুর গ্রাম থেকে আসা অজ্ঞাত ২ জন ব্যক্তি ঝনকা এসে বন বিড়ালটিকে তাদের সাথে নিয়ে গেছে। ঐ অজ্ঞাত ব্যক্তিরা এলাকাবাসীকে জানিয়েছেন, এই প্রানীর মাংস দিয়ে জটিল রোগের ওষুধ তৈরি করা হবে।

felis chaus1

ছবি ক্যাপশণ : মুক্তাগাছা (ময়মনসিংহ) : ধৃত বন বিড়াল

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ধৃত বন বিড়ালটি বেশ কিছুদিন যাবৎ ঝনাকা গ্রামের বিভিন্ন ফার্মের মুরগি চুরি করে খচ্ছিলো। তাই তারা অতিষ্ঠ হয়ে ফাঁদ পেতে বন বিড়ালটিকে আটক করে। স্থানীয় সেলিম ফরাজি নামের এক ব্যক্তি ফাঁদ পেতে বন বিড়ালটিকে খাঁচায় বন্দি করে।

স্থানীয়রা প্রাণীটিকে ওয়াফ, ওয়াপ নামে ডাকে। ওয়াফ, ওয়াপ আটকের খবর পেয়ে পাশ্ববর্তী চাঁনপুর থেকে ২ জন অজ্ঞাত ব্যক্তি এসে বন বিড়ালটিকে নিয়ে যায়। ঝনকা গ্রামের একজন বাসিন্দা তার ফেসবুক ওয়ালে খাঁচায় বন্দি বন বিড়ালটির ছবি পোস্ট করলে আমার নজরে আসে। ঘটনাস্থলে গিয়ে বন বিড়ালটিকে পাইনি।

এব্যাপারে মুক্তাগাছা রসুলপুর বনের রেঞ্জ কর্মকর্তা আব্দুল কদ্দুসের সাথে যোগাযোগ করি। তিনি জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই। আপনার কাছেই প্রথম শুনলাম।

felis chaus1 (2)

উইকিপিডিয়া সূত্রে জানা যায়, বন বিড়াল বা জংলীবিড়াল (Felis chaus), খাগড়া বিড়াল ও জলাভূমির বিড়াল, মাঝারী আকারের একটি বিড়াল, যা এশিয়ার দক্ষিণ চীন, মধ্য, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, পশ্চিমে নীল নদ উপত্যকায় দেখতে পাওয়া যায়। বাংলাদেশের ১৯৭৪ ও ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনের তফসিল-১ অনুযায়ী এ প্রজাতিটি সংরক্ষিত।

জংলীবিড়াল CITES Appendix এর তালিকাভুক্ত। জংলীবিড়াল শিকার বাংলাদেশ, চীন, ভারত, ইসরায়েল, মায়ানমার, পাকিস্তান, তাজিকিস্তান, থাইল্যান্ড, এবং তুরস্কে নিষিদ্ধ, কিন্তু ভুটান, জর্জিয়া, লাওস, লেবানন, মায়ানমার, নেপাল, শ্রীলঙ্কা, ও ভিয়েতনামের মধ্যে সুরক্ষিত এলাকার বাইরে আইনি সুরক্ষা নেই।