ক্যাটেগরিঃ খেলাধূলা

 

ময়মনসিংহে ধোবাউড়ায় কলসিন্দুর ফুটবল কন্যাদের সাথে ঈদেরদিন ময়মনসিংহ জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারন সম্পাদক সাজ্জাদ জাহান চৌধুরী শাহীন ঈদের আনন্দ ভাগ করেন ।
mymensinghwomen-football-players
ইতিহাস গড়া বাংলাদেশ নারী অনুর্ধ্ব-১৬ ফুটবল দলের সদস্য কলসিন্দুর স্কুল এন্ড কলেজের ৯ ছাত্রী। সদ্য সমাপ্ত এএফসি অনুর্ধ্ব-১৬ ফুটবল টুর্নামেন্টের বাছাইপর্বের খেলার প্রস্তুতি ক্যাম্পের জন্য গত ঈদ উল ফিতর উদযাপন করতে পারেননি সানজিদা, মার্জিয়ারা।

কিন্তু এবার বাংলাদেশের লাল সবুজের পতাকাকে বিশ্বের দরবারে উঁচু করে ইতিহাস সৃষ্টির পর বাবা-মা, স্বজন ও প্রতিবেশীদের সঙ্গে নিজ ভূমি কলসিন্দুরে ঈদ উল আজহা উদযাপন করলেন ফুটবল কন্যারা ।এলাকাবাসীর ভালবাসা আর উপহার সামগ্রীর মধ্য দিয়ে এক ভিন্নরকম ঈদ উদযাপন করল শামসুন্নাহার, তহুরা,শিউলীরা।
mymensinghwomen-football-players2
ঈদের দিন বিকালে কলসিন্দুর স্কুল এন্ড কলেজের অফিস কক্ষে কন্যাদেরকে উপহার সামগ্রী ও মিষ্টি বিতরণ করেন, ময়মনসিংহ জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন শাহিন। এসময় উপস্থিত ছিলেন কলসিন্দুর স্কুল এন্ড কলেজ এর সভাপতি প্রিয়তোষ বিশ্বাস বাবুল, অধ্যক্ষ জালাল উদ্দিন, সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক মিনতী রাণী শীল, কোচ মফিজ উদ্দিন, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন খানসহ সাংবাদিক, ফুটবল কন্যাদের অভিভাবক ও এলাকাবাসী।

এর আগে গাজীপুরের প্যারামেডিকেল কলেজের পক্ষ থেকে প্রত্যেক কন্যাকে ১৫ হাজার টাকা, ৩ সেট জামা-শাড়ি, লুঙ্গিসহ নানান উপহার সামগ্রী দেয়া হয়। এসব উপহার সামগ্রী পেয়ে খুশি কলসিন্দুরের ফুটবল কন্যারা।

mymensinghwomen-football-players3
তহুরা জানান, এসব উপহার-সামগ্রী তাদের ঈদের আনন্দকে বাড়িয়ে দিয়েছে। তিনি বলেন, এই উৎসাহ দেশের জন্য ভাল খেলা উপহার দিতে তাদের আরও এগিয়ে নেবে। দেশের জন্য ভালো কিছু উপহার দিতে প্রস্তুত ।

এ বিষয়ে ফুটবল কন্যা সানজিদার বাবা লেয়াকত হোসেন বলেন, মেয়েরা বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করে আমাদের কাছে এসেছে । ঈদে সানজিদাকে কাছে পেয়ে আনন্দ অনেক বেড়ে গেছে। গামারীতলা ইউয়িনের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন খান বলেন, ক্যাদেরকে এলাকাবাসী অনেক সহযোগিতা করেছেন। তারা দেশের সুনাম তথা কলসিন্দুর সারা বাংলাদেশকে পরিচয় করিয়ে দিয়েছে, এতে আমরা অনেক খুশি।

তিনি আরও বলেন, তাদেরেএই খেলা ধরে রেখে আরও ভাল খেলার জন্য আমার ইউনিয়ন পরিষদ থেকে সার্বিক সহযোগিতা করব।গত ৬ সেপ্টেম্বর ঢাকা থেকে বাড়িতে আসেন অপরাজেয় ফুটবল কন্যারা। এরপর থেকে মিডিয়া আর মানুষের জন্য ব্যস্ত থাকতে হয়েছে তাদের।

আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবেন কলসিন্দুর স্কুল এন্ড কলেজের এই ৯ ছাত্রী।

ভারতে সাফ গেমস খেলার জন্য প্রায় দেড় মাসের প্রস্তুতি ক্যাম্প রয়েছে। সব মিলিয়ে কলসিন্দুরের সোনার কন্যারা দেশের জন্য খুবই ব্যস্ত সময় পার করছেন।

এদিকে, এই ফুটবল কন্যাদের অবহেলার প্রেক্ষিতে শুক্রবার বিকাল চারটায় ফুটবল ফেডারেশনের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় ।
last
শনিবার ফেডারেশরেশনের পক্ষ থেকে ঢাকায় তাদের সংবর্ধনা দেওয়া হবে।
এসএ গেমসের অনুশীলন ক্যাম্পে যোগ দিতে ঢাকার উদ্দেশে ধোবাউড়ার কলসিন্দুর ছেড়েছেন ফুটবল কন্যারা। গতকাল শুক্রবার সকাল ৮টায় কলসিন্দুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে থেকে বাফুফ প্রেরিত মাইক্রোবাস যোগে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেন।

এ সময় স্থানীয় হাই স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক রতন মিয়া, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিনতী রাণী শীল, কন্যাদের অভিভাবক ও এলাকাবাসী তাদেরকে বিদায় জানান।

কন্যাদের সঙ্গে আছেন কোচ মফিজ উদ্দিন । এর আগে অনুর্ধ্ব-১৬ ফুটবল টুর্নামেন্টের বাছাইপর্বের খেলা শেষে ঈদ করতে বাড়িতে যান কন্যারা।

তাদের লোকাল বাসে পাঠানোর জন্য সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে বাফুফে কর্মকর্তাদের। এবার বাফুফের পক্ষ থেকে একটি মাইক্রোবাস দেয়া হয় অপরাজেয় এই ফুটবল কন্যাদের ।