ক্যাটেগরিঃ প্রশাসনিক

 

ময়মনসিংহ বিভাগে ভূমি ব্যবস্থাপনা সহজীকরণের লক্ষে এ বিভাগের ৩৫ উপজেলার এসি ল্যান্ডদের সামনে ২৬ টি পয়েন্ট সমন্বিত একটি টার্গেট দেয়া হয়েছে ।

v1
ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় সূত্রে বৃহস্পতিবার এতথ্য জানা গেছে। সূত্র জানায়, বিভাগীয় কমিশনার জি. এম সালেহ উদ্দিনের নির্দেশ অনুযায়ী ধীরে ধীরে বদলে যাচ্ছে ময়মনসিংহ বিভাগের ভূমি ব্যবস্থাপনার সামগ্রিক চিত্র।

v2
বিভাগীয় কমিশনার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলমের সম্মতি নিয়ে ভূমি ব্যবস্থাপনা সহজীকরণের লক্ষে এ বিভাগের ৩৫ উপজেলার সহকারী কমিশনারদের ভূমি(এসি ল্যান্ড) সামনে ২৬ টি পয়েন্টের লক্ষমাত্রা আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যে অর্জন করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

v3

এই ২৬ টি পয়েন্ট হচ্ছে, উপজেলা ভূমি অফিসে দৃশ্যমান স্থানে নাগরিক সনদ প্রদর্শন। অপোগার-সেবা প্রার্থীদের সুন্দর পরিবেশে বসার ব্যবস্থা গ্রহণ। হেল্প ডেস্ক-সেবা ক স্থাপন।গণশুনানি গ্রহণ। গণশুনানি রেজিস্টার চালুকরণ।রেকর্ডরুমের উন্নয়ন এবং সাল ভিত্তিক সজ্জিতকরণ (আংশিক)। অভিযোগ বাক্স স্থাপন।

 

001
ভূমি সচেতনামূলক শ্লোগান সম্বলিত ফেষ্টুন-ব্যানার প্রদর্শন।নামজারী সেবা ফি এবং নিয়মাবলী সংক্রান্ত পৃথক ফেষ্টুন প্রদর্শন। ভ্রাম্যমান ভূমি সেবা কার্যক্রম চালুকরণ। অপেমান সেবা প্রার্থীদের জন্য বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থাকরণ। ভূমি শিা কার্যক্রম (ভূমি শিালয়) প্রবর্তন (আংশিক)।

ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা-উপ-সহকারী কর্মকর্তাগণের প্রশিণ প্রদান। উপজেলা ভূমি অফিসের কর্মচারীদের কর্মবন্টন প্রকাশ্য স্থানে প্রদর্শন।
v4

মনিটরিং ড্যাশবোর্ড স্থাপন। নামজারী-বন্দোবস্ত প্রাপ্তি এবং জমি কেনার পূর্বে কোন কোন বিষয় যাচাই করা প্রয়োজন এসব তথ্য সম্বলিত ব্যানার প্রদর্শন। অসৎ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চিহ্নিত করে শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণ। অফিস পরিস্কার পরিচ্ছন্নকরণ। ভূমি উন্নয়ন কর ক্যালকুলেটর ব্যবহার।

v5

জেলা-উপজেলা- ইউনিয়ন পর্যায়ের ভূমি সংক্রান্ত সকল কর্মকর্তার দাপ্তরিক মোবাইল নম্বর দৃশ্যমান স্থানে প্রদর্শন। ভূমি সংক্রান্ত সকল আবেদনের ফরমেট তৈরি করা ও সেবা ডেস্ক-হেল্প ডেস্ক থেকে সেবা গ্রহীতার নিকট সরবরাহকরণ। আর এস রেকর্ড স্ক্যানিং। সিসি ক্যামেরা স্থাপন।

পৃথক ওয়েবসাইট নির্মাণ। রেকর্ড সংরণে কালার কোডিং এর ব্যবহার । মিডিয়া সংলাপ (পরামর্শ-আবেদন-অভিযোগ গ্রহণ এবং বিধি মোতাবেক নিষ্পত্তি)।
ময়মনসিংহ বিভাগবাসী মনে করছেন, নি:সন্দেহে এটি একটি সফল উদ্যোগ ।