ক্যাটেগরিঃ জনজীবন

ময়মনসিংহে শীতের আমেজে গায়ে জড়ানোর লেপ তৈরি আর কম্বল বিক্রির ধুম পড়েছে। ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন লেপ তৈরির কারিগর ধুনকরেরা। ময়মনসিংহে সিংহভাগ লেপ তৈরি হচ্ছে গার্মেন্টস কারখানার ওয়েষ্ট সূতা ও টুকরা কাপড়ে তৈরি তুলায়। শিমুল ও কার্পাস তুলার মূল্য বৃদ্ধি ও দুষ্প্রাপ্যতার কারণে লেপ তৈরিতে এখন আর এ তুলা সাধারণত ব্যবহার হয় না।

mymensinghcoating-blanket
দাম হাতের নাগালে হওয়ায় লেপের চেয়ে বেশি ক্রেতা চাহিদা কম্বলে। দেড়শ’ টাকা থেকে ২শ’ টাকায় মিলছে কম্বল। কম দামের জন্য কম্বলের চাহিদা তুঙ্গে। শিমুল ও কার্পাস তুলার পরিমাপ অনুযায়ী একটি লেপ তৈরিতে কিনতে খরচ পড়ে ২ থেকে ৩ হাজার টাকা। সেখানে গার্মেন্টস তুলায় লেপ পাওয়া যায় ৪শ’ থেকে ৫ শ’ টাকায়।

দামের বিবেচনায় কম্বলের চাহিদা বাড়লেও লেপ তৈরির কারিগর ধুনকরের সংখ্যা কমছে। ধুনকরেরা জানান, আগে কাপাস-তুলোর লেপ, কম্বল, তোষক ব্যবহার করা হত। আর শিমুল-তুলা দিয়ে মাথার বালিশ, কুলবালিশ তৈরি করা হত। এখন এই লেপের চাহিদাও নেই মেলে না এই তুলাও । কম্বলের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় তুলা ধোনার দক্ষ কারিগরের সংখ্যা কমে আসছে।

mymensinghcoating-blanket-2
কম্বল বিক্রেতারা জানান, গত বছর কম্বলের বাম্পার ব্যবসা হয়েছে। এবছরও ভালো বিক্রির আশায় অনেক কম্বল স্টক করা হয়েছে। ধুনকরেরা জানান, বছরের দীর্ঘ সময় বসে কাটালেও এখন রাত দিন সময় কাটছে লেপ তৈরির কাজে।