ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

বাংলাদেশের বর্তমান রাজনৈতিক বাস্তবতায় একটি তৃতীয় রাজনৈতিক শক্তি প্রয়োজন ,কেননা বড় দুটি দলের মধ্যে এক ধরনের অহংকার এসেছে যার কারনে তারা উভয় দলই জনগণকে অসহায় ভাবছে । তারা একবার ভাবছে না যে, জনগনই সকল ক্ষমতার উৎস। একমাত্র জনগণই পারে এদের মত অসৎ রাজনৈতিকদের বয়কট করতে। আমাদের দেশের রাজনীতিকরা তাদের এবং আত্মীয় স্বজনদের সম্পদ বানানোর নেশায় মত্ত হয়ে পড়েছে -তাদের মধ্যে যে দলই ক্ষমতায় থাকে সেই দলই হরতাল আর তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থাকে অপ্রয়োজনীয় বলছে ,আর ক্ষমতার বাইরে থাকা দল হরতাল আর তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রয়োজনীয় বলে যাচ্ছে । অথচ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করা স্বত্ত্বেও তারাই আবার সংসদে যাচ্ছে না । এটা কেমন ধরণের রাজনীতি? জনগণের সাথে এরকম ধোঁকাবাজির খেলা আর বেশিদিন টিকবে না।নির্বাচনের সময় নির্বাচনী ওয়াদা দিয়ে ক্ষমতায় প্রবেশ করে জনগণকে ৫ বছর শুষে খায় এক দল তারপর আসে আরেকদল। এভাবে নাম মাত্র গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নির্বাচনের মাধ্যমে প্রায় ২১ বছর যাবত দুই দল জনগণ কে শোষণ করে চলেছে। কিন্তু আর নয় এই শোষণ; এবার জনগণ জেগে উঠতে শুরু করেছে। মাঠে-ঘাটে, দেশের আনাচে-কানাচে এখন সকল স্তরের মানুষের মুখে শুধু একটাই কথা- পালাবদলের সরকার আর চাই না; এবার চাই কঠিন আর বাস্তব সম্মত পরিবর্তন। যা কেবলই মানুষের জন্য সত্যিকারের অধিকার বাস্তবায়ন করবে।

৩০ লক্ষ শহীদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে পাওয়া এই বাংলাদেশকে নিয়ে যারা জুয়া খেলছে, প্রয়োজনে দেশের সম্পদ লুট করে পাচার করছে তাদের হাত থেকে দেশকে বাঁচাতে হবে। আর এজন্য জনগণের সহায়ক ভূমিকা অনেক বড়। জনগণ ইচ্ছে করলেই দেশকে বাঁচাতে পারে; যেমন করে ’৭১ এ একত্রিত হয়ে এদেশকে পাকিস্তানীদের হাত থেকে বাঁচাতে পেরেছিল। আজ যদি জনগণ চায় যে, এই দুই পরিবারতান্ত্রিক দল দু’টো কে আর নয়; এবার তৃতীয় কোন রাজনৈতিক শক্তিকে দেশের শাসনভার তুলে দেয়া হবে, দেশের সরকার প্রধান করবে তবে সেটা সম্ভব।

তাই আসুন আমরা যারা জনগণ তারা ঐ দুই দলের বাইরে আসন ওয়ারি ভাল মানুষের পক্ষে কাজ শুরু করি এবং আগামী নির্বাচনে দুই বড় দলের অসৎ দুর্নীতিবাজ আমলা ব্যবসায়ী প্রার্থীদের পরাজিত করে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করি । প্রত্যেকেই নিজ নিজ স্থান থেকে প্রতিবাদের ঝড় তুলি। আমাদের দেশের মানুষের সাহস অনেক বেশি। যুদ্ধ, প্রাকৃতিক দূর্যোগ কোন কিছুই এদেশের মানুষকে টলাতে পারেনি। তাই আমি বিশ্বাস করি, এদেশের মানুষ রাজনীতির এই ঘূর্ণি ঝড়কে প্রতিহত করে মাথা তুলে দাঁড়াবে। দূর্বার কণ্ঠে, শক্ত হাতে দমন করবে সকল অসৎ পরা শক্তিকে। বিজয়ের পতাকা চীর উজ্জ্বল হয়ে থাকুক ৩০ লক্ষ শহীদের এই বাংলাদেশে;

আসুক না ঝড় আসুক, না না না কাঁপবে না বুক…

মাসুম আহম্মেদ
এল এল এম (১ম বর্ষ, ১৬তম ব্যাচ)
ওয়ার্ল্ড ইউনিভারসিটি
ঢাকা।