ক্যাটেগরিঃ ধর্ম বিষয়ক

 

মানুষের সবচেয়ে স্পর্শকাতর জায়গা হচ্ছে ধর্মীয় অনুভূতি। যে যে ধর্মে বিশ্বাসী সেই ধর্মের স্থান তার কাছে তার নিজের জীবনের চাইতে অনেকখানি বেশী । ধর্মের জন্য নিজের জীবন দিতে কুন্ঠাবোধ করে এরকম মানুষ হয়তো খুব কমই পাওয়া যাবে । কিন্তু ইদানিং কালে কিছু মানুষ খুঁজে পাওয়া যায় যাহারা নিজ ধর্মের বিরুদ্ধে কথা বলে । অথচ তখনো সে নিজেকে আবার সেই ধর্মের বলে দাবি করে । নিজের ধর্মের প্রতিটি বিষয় পালন করা তার জন্য দায়িত্ব ও কর্তব্য জানা সত্ত্বেও যে সব বিষয় তার কাছে কঠিন মনে হয় তার বিরুদ্ধে লিখতে কুন্ঠিত হয় না । বাংলাদেশ মুসলিম প্রধান দেশ । এখানকার প্রায় ৯০ ভাগ মানুষ মুসলমান । সুতরাং এখানে ডানপন্থী রাজনৈতিক/অরাজনৈতিক দল থাকাটা অবশ্যম্ভাবী । বরং না থাকাটাই হবে অপূর্ণতা ।

আর আমরা বাংলার কিছু স্বাধীন জনগন এসব দল বা গোষ্ঠীর বিরুদ্ধাচরণ করা নিজের দায়িত্ব মনে করে আর ধর্মীয় আলোচনা সামনে আসলেই ভাবতে শুরু করি আমাদের সংস্কৃতি আমাদের কালচার কে আমরা কেমন করে ১৫০০ বছর পিছিয়ে নেই? অথচ সেই ১৫০০ বছর আগের কালচার ছিল মুসলমানদের সেরা কালচার , তখনকার মানুষগুলোও ছিল মুসলমানদের ইতিহাসের সেরা মানুষ । যা আর চাইলেও কখনোই ফিরে আসবে না । ধর্ম আমাদের কি শিক্ষা দেয় নি ? একজন মুসলমান ধর্ম থেকে কি পায় নি? জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত সব কিছু লেখা আছে ধর্মের মধ্যে । অথচ আমরা বরই পন্ডিত হয়ে গেছি যে ধর্ম বাদ দিয়ে সবকিছু নতুন করে ভাবতে শুরু করেছি । ধর্মীয় দিক্ষা গুরুদের অবহেলা করা নিজেদের স্বভাবে পরিনত করেছি । কিন্তু সত্যিকারের শান্তি ও কামিয়াবি কখনোই মিলবে না যতক্ষণ না পর্যন্ত আমরা ধর্মকে ভালোভাবে আকড়ে ধরবো ।