ক্যাটেগরিঃ মুক্তমঞ্চ

কোনটা ছেড়ে কোনটা লিখি বুঝতে পারছি না। তনু হত্যার বিচার চাইব নাকি রাজশাহীতে ১৪ বছরের মেয়েকে গণধর্ষনের কথা লিখব নাকি রাষ্ট্রধর্ম ইসলামের পক্ষে লিখব। এখনকার টক অব দ্যা কান্ট্রি তো সবগুলোই। সেই সাথে আবার ভারতের কাছে বাংলাদেশের ১ রানের হার এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের টাকা চুরি।

যাই হোক শুরু করি আমাদের মনুষ্যত্ব নিয়ে। যখন রাস্তা দিয়ে চলি সুন্দরী কোন মেয়ে দেখলেই নিজেকে ঠিক রাখতে পারি না। পটানোর নানা ফিকির মাথায় ঘুরপাক খায়। এর ফলে কত মেয়েকেই যে করুণ পরিনতির স্বীকার হতে হয় তা বিজ্ঞ মহলের না জানার কথা নয়। দেশে যতগুলো ধর্ষন কিংবা নির্যাতনের ঘটনা ঘটে তার অতিসামান্যই মিডিয়াতে আসে। যখন একটি ঘটনা আমাদের সামনে চলে আসে তখন আমরা মায়াকান্না করি। কিন্তু কয়েকদিন পর সেটা হারিয়ে যায় মহাশুন্যের কোথাও। আজ যারা এই মায়াকান্না করছে কাল হয়তোবা তাদেরই একজন সেই নতুন কোন এক ঘটনার নায়ক। এভাবেই চলছে বাংলাদেশ। এর কোন সঠিক বিচার নাই।

এরপর আসি রাষ্ট্রধর্ম প্রসঙ্গে। আমাদের দেশটায় প্রায় ১৮ কোটি মানুষ। তার প্রায় ৯২ ভাগ মুসলমান। সেখানে সাম্প্রদায়িকতার নামে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম এর বিরুদ্ধে হাইকোর্টে রিট হওয়ার কোন কারণ দেখি না। কারণ ইসলাম তো সব ধর্মের মানুষকেই দিয়েছে অবাধ ধর্ম পালনের অধিকার। যারা ধর্মের নাম করে সংখ্যালঘুদের উপর হামলা করে তারা আর যেই হোক না কেন ইসলামের কোন উপকার করছে না, উল্টো আরও মুসলমানদের ক্ষতির মধ্যে ফেলতেছে। সুতরাং রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম সাম্প্রদায়িক সম্পর্কের জন্য কোন হুমকি নয় বরং আরও উপকারী। বরং রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম তুলে নিলেই মনে হয় বেশি সমস্যা। তাই আমি আশা করি এ বিষয়ে বিজ্ঞ মহোদয়গণ আরও গভীরভাবে চিন্তা করবেন।