ক্যাটেগরিঃ কৃষি

মিডিয়া ব্যক্তিত্বদের মধ্যে অনেককেই দেখেছি, উনারা সেলিব্রেটি হওয়ার পর আর নিচের দিকের মানুষদের সাথে মেশার সুযোগ পান না। এভাবেও বলতে পারেন- উনারা উনাদের সেলিব্রেটি হওয়ার গন্ধে মৌ মৌ করা পোশাক আর পরিবেশ এর মধ্যে বন্দী হয়ে পরেন। তা আমার কাছে সাধারণ বলেই মনে হয়। আসলেই তো উনি অনেক কষ্ট করে এতটা পথ পাড়ি দিয়ে আজ সেলিব্রেটি। উনারা একটু তো বেছে চলবেনই। কিন্তু সে স্বাভাবিক সেলিব্রেটি ধারা থেকে এক্কেবারেই আলাদা প্রকৃতির বলে আমার কাছে মনে হয়েছে,এক সময়ের বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রচারিত ‘মাটি ও মানুষ’ এবং বর্তমানে চ্যানেল আই’তে প্রচারিত ‘হৃদয়ে মাটি ও মানুষ’ এর উপস্থাপক সর্বোপরি চ্যানেল আই এর কর্ণধার, অসাধারণ হয়েও সাধারণ ভঙ্গীতে এখনও পথ চলা একজন মানুষ শাইখ সিরাজকে। অবশ্য সেলিব্রিটিদের মধ্যেও ব্যতিক্রম আছেন বৈকি, বাংলাদেশে তাদের মধ্যে উজ্জ্বল নক্ষত্রের মধ্যে অন্যতম একজন, তিনি শাইখ সিরাজ।

ঈদের তৃতীয় দিন চ্যানেল আইয়ে প্রচারিত হল শাইখ সিরাজ পরিচালিত ও উপস্থাপনায় ‘কৃষকের ঈদ আনন্দ’ অনুষ্ঠানটি। বেশ আনন্দ দিয়েছে অনুষ্ঠানটি। নেত্রকোনার প্রত্যন্ত হাওর অঞ্চলের প্রান্তিক কৃষকদের অংশগ্রহণে এই অনুষ্ঠানটি প্রাণবন্ত করে সাজিয়েছিলেন তিনি। এরই কিছু ছবি এবং প্রমো ভিডিও উনার ফেসবুক ওয়াল থেকে শেয়ার করলাম আপনাদের জন্য।


বিপরীত মুখি দৌড় খেলা।


নানা এবং নাতির দৌড় খেলা।


পিচ্ছিল বাঁশ ঝুলে ঝুলে পার হওয়ার খেলা।


পানিতে ভেজা অর্ধেক শরীর নিয়ে উপস্থাপনা করছেন শাইখ সিরাজ।


কৃষকের চোখ বাধা অবস্থায় বধুকে সাজানোর খেলা।


বালিশ লড়াই।


খেলাগুলোর একটি পর্বে বিজয়ীদের পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান।


প্রান্তিক কৃষকদের শিশুদের অপরূপ সাজ।

অসাধারন পরিকল্পনা আর প্রাণবন্ত উপস্থাপনা সাথে প্রান্তিক কৃষকদের অংশগ্রহন বেশ উপভোগ্য করে তুলেছিল অনুষ্ঠানটি। বিশেষ করে যেভাবে শাইখ সিরাজ পানিতে দাঁড়িয়ে অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করছিলেন। প্রায় ভিজে অবস্থায়ই ছিলো উনার অর্ধেক শরীর! হাওর অঞ্চলের কয়েকজন শিশুকে মাছ চিনিয়ে দেয়ার সময় শাইখ সিরাজ আর ওরা হাওরের একদল শিশু, এই পার্থক্যটি এক্কেবারেই মনে হয়নি। এই না হলে – মাটি ও মানূষের প্রানপ্রিয় পুরুষ শাইখ সিরাজ। একটি বড় চিংড়ি মাছ ছোট একটি মাছকে আকড়ে ধরে আছে আর প্রান্তিক কৃষক তরুনটি বলছে- প্রভাবশালীরা আমাদেরকে এভাবেই আকড়ে ধরে মেরে ফেলে, বঞ্চিত করে। এই অংশটি মনের মধ্যে গেথে গিয়েছে আমার। কৃষকের ঈদ আনন্দ আয়োজনের সাথে সাথে হাওড়ের সাধারন প্রান্তিক মানূষগুলোর বেশ প্রধান কিছু সমস্যা তুলে ধরেছেন তিনি একই সাথে। কৃষি এবং কৃষকদের নিয়ে দীর্ঘদিন একই ভাবে এবং একই পোষাকে এবং একই ধারায় শাইখ সিরাজের পথাচলা। একজন শাইখ সিরাজ আমাদের সত্যি দরকার। উনি এ দেশের কৃষি এবং কৃষকের উন্নয়নে অবিরাম পরিশ্রম করা একজন কৃষক দরদি বলেই ভাবতে ভালো লাগে আমার কাছে।

এই মানূষটির মতন কৃষি এবং কৃষকদের নিয়ে ভাবার মতন আরও শাইখ সিরাজকে দরকার আমাদের।