ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

বাংলাদেশের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে জনগণ এখন চরম উৎকণ্ঠায় রয়েছে। এমনকি অনেকে আশঙ্কা করছেন হয়ত এ নির্বাচনই হবেনা। আবার নির্বাচন হলেও তা সরকারি দলের অধীনে হবে না নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে হবে তা নিয়ে যথেষ্ঠ বিতর্ক চলছে। তত্ত্বাবধায়ক প্রশ্নে সরকারি দল এবং বিরোধী দলের মধ্যে আপাতত কোন সমঝোতার লক্ষণ দেখা যাচ্ছেনা। তবে কোন কোন তাত্ত্বিক মনে করছেন নির্বাচনের ঠিক পূর্ব মুহূর্তে তত্ত্বাবধায়ক ইস্যু নিয়ে জটিলতার অবসান হবে। আর এ জটিলতা অবসানের উপায় হিসেবে অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের পদ্ধতিকে গ্রহণ করা হতে পারে। কিন্তু অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের মডেল নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে যে বিভেদ দেখা দেবে না তা কোনভাবেই বলা যায়না। অর্থাৎ বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে কয়েকটি প্রশ্ন সামনে চলে আসে। প্রথমত, আগামী নির্বাচন তত্ত্বাবধায়ক, সরকারি দল না অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের অধীনে হবে? দ্বিতীয়ত, অর্ন্তবর্তীকালীন সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে সেই অন্তর্বর্তীকালীন সরকার কাদের নিয়ে গঠিত হবে? তৃতীয়ত, বর্তমান সরকার কঠোর অবস্থানে থেকে সরকারি দলের অধীনেই নির্বাচন করলে তাতে কি বিরোধী দল অংশগ্রহণ করবে? চতুর্থত, দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন কি আদৌ অনুষ্ঠিত হবে নাকি অস্থিতিশীলতার সুযোগ নিয়ে সেনাবাহিনী ক্ষমতা দখল করবে। এই প্রশ্নগুলো আজ সবার মনেই ঘুরপাক খাচ্ছে। তাই বাংলাদেশের গণতন্ত্রে আজ যে জটিলতা দেখা যাচ্ছে তা সমঝোতার মাধ্যমে যত তাড়াতাড়ি নিরসন করা সম্ভব ততই মঙ্গল।