ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

কে বলে যে ভারত বাংলাদেশের বন্ধু?? আমরা পিছিয়ে থাকা দরিদ্র দেশ হয়েও তাদেরকে একের পর এক সুবিধা দিয়ে যাচ্ছি আর বিনিময়ে তাদের যখন দেওয়ার পালা আসছে তখন নানা রকম তালবাহানা, আ্বাইন গাইন দেখানো্ হচ্ছে। কখনও সংবিধান পরিবর্তন সংক্রান্ত জটিলতা কখনও রাজ্যের স্বার্থের কথা বলে ফাঁকি দিচ্ছে। ভারতের এই অপ্রত্যাশিত আচরনকে অমানবিক বলবো না বাংলাদেশের সব দিয়ে দেওয়ার প্রবণতাকে অবিবেচক বলবো??

প্রসঙ্গত গরম খবর হলো বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের তিস্তা পানিবণ্টন চুক্তি সম্পাদনের ব্যাপারে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের প্রতিনিধি রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় পশ্চিমবঙ্গ সরকারের অবস্থান স্পষ্ট জানিয়ে বলেন, রাজ্যের স্বার্থ ক্ষুণ্ণ করে তিস্তার পানিবণ্টন-সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক চুক্তি সম্পাদন করা যাবে না।কেন্দ্রীয় পানিসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী হরিশ রাওয়াত বলেন, তিস্তার পানিবণ্টন নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের ভাবনাকে কখনো অবহেলা করা হবে না। প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংও জানিয়ে দেন, পশ্চিমবঙ্গকে এড়িয়ে তিস্তার পানিবণ্টন চুক্তি করবে না কেন্দ্রীয় সরকার।আরও কিছু তথ্য যা আমরা সবাই জানি:

* বিভিন্ন নদীতে ব্যারেজ দিয়ে বাংলাদেশ কে মরুভূমিতে পরিণত করে ফেলছে।

* কখনও শুনেছেন ভারতে ফেনসিডিল আনতে গিয়ে কেও মারা গেছে? তাহলে গরু আনতে গিয়ে কেন বার বার বাংলাদেশীদের প্রাণ দিতে হচ্ছে?? স্পষ্ট বোঝা যায় ভারত বাংলাদেশে মাদক এর বিস্তারে নিরব সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে।

* বাংলাদেশী মিডিয়া চলতে দেওয়া হয় না, কারন দেখায় যে বাংলাদেশী পণ্যের মার্কেট তৈরী হবে…!

* বাংলাদেশ ক্রিকেট টিম কে কেন আমন্ত্রন জানানো হয় না, তারাও খেলতে আসে না কারন বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচ অলাভজনক….! এমনকি বি.পি.এল-এ কোন ভারতীয় খেলতে আসেনি।

* ভারত এশিয়ান হাইওয়ে তার নিজের মত করে পছন্দ করতে বাংলাদেশকে বাধ্য করছে।

* জামদানী সহ বেশ কিছু পণ্যের প্যাটেন্ট অন্যায্যভাবে নিজেদের বলে জাহির করছে। ভারতীয় হ্যাকাররা মাঝে মধ্যেই বাংলাদেশের সরকারী ওয়েবসাইট হ্যাক করছে।

* প্রতিদিন শত শত বাংলাভাষীদের বাংলাদেশে অবৈধভাবে প্রবেশ করানোর চেষ্টা করানো হচ্ছে।

তাই ভারতের সাথে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করলে কেমন হয়??