ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

১৯৭৫ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের মৃত্যুর কিছুদিনের মাথায় সামরিক শাসন বাঙ্গালীর ঘাড়ে চাপল । শুরু হল পাকিস্তানী কুয়ালীটির রাজনীতি !! … জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় এসে নামকরা রাজাকার শাহ মোহাম্মাদ আজিজুর রহমান কে পাকিস্তান থেকে আমদানী করে আনলেন আর শপথ বাক্য পড়িয়ে প্রধান মন্ত্রী করলেন যিনি শান্তি কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন , যিনি দেশ স্বাধীনের পর পাকিস্তান পালিয়ে গিয়ে পাকিস্তানী সরকারের অনুগ্রহে ছিলেন আবার পুর্বপাকিস্তান পুন:রুদ্ধার কমিটির নেতা হলেন ৬ বছর বাংলাদেশের বিরুদ্ধে বিভিন্ন দেশে ঘুরে বেরালেন দেশের গলাটিপে মেরে পাকিস্তান বানাতে !! সেই নামকরা রাজাকার জিয়ার প্রধানমন্ত্রী !! সাথে আসল বাছুর রাজাকার (গাইয়ের সাথে বাছুর আসবেই) হলেন স্বরাস্ট্রমন্ত্রী মাজেদ আলী । ………. আর শুরু হল পাকিস্তান থেকে আসা রাজাকারের বাহিনীর … গোআজম নিজামী মুজাহিদ …………. ইত্যাদি ইত্যাদি । রাজাকরেরা রাজনীতির লাইসেন্স পেল , জিয়াকে গুরু মনে করল ।

ডিজিএফআই গঠিত হল পাকিস্তানী আইএসাই কোয়ালীটির , যাতে বার বার সামরিক শাসন ধারাবাহিক ভাবে আসতেই থাকে ..। যাতে গণতন্ত্রী দলের গলাটিপে ধরে রাখা যায় ।
চলল শাসন সামরিকের ১৯৯০ পর্যন্ত , জিয়ার তৈরি ডিজিএফআই এর সফলতা ! পাকিস্তানী প্রেসক্রিপশনে চলছিল দেশ । এরশাদও তাই করল…

খালেদা আসল ১৯৯০ সালে , যেই জিয়া সেই খালেদা ……….. । রাস্ট্রপতি হলেন শান্তি কমিটি নেতা জনাব আব্দুর রহমান বিশ্বাস আর ডেপুটি স্পিকার সহ রাজাকার । বহু মন্ত্রী এমপি রাজাকার … ।
গোলাম আজমকে নাগরিকত্ত্ব দেয়া হল ।

আবার খালেদা ২০০১ সালে , আর কি বলতে হবে রাজাকারের জন্য কি কি করেছেন ?? পতাকা তুলে আবার দিলেন গাড়িতে , দুই রাজাকার মন্ত্রী তার মধ্যে একজন ট্রেকনোক্রাটে (যার ভোট মাত্র ৪,০০০) সেই রাজাকার ……………।
সেই খালেদা সেই জিয়া সেই রাজাকার …………. গেহরা রিস্তা (গভীর সম্পর্ক) ।