ক্যাটেগরিঃ ধর্ম বিষয়ক

 

মালাউন শব্দটি আরবি শব্দ “ملعون” থেকে উদ্ভূত যার অর্থ অভিশপ্ত বা আল্লাহর অভিশাপপ্রাপ্ত। হিন্দুদের কোরান হাদিসে কোথাও মালাউন শব্দে ডাকা হয়নি। এমনকি ইহুদী নাসারাদেরও কোরান একটা স্থান দেয়া হয়েছে আহলে কিতাব বা কিতাবে বিশ্বাসী। আল্লাহ তালা কোন ধর্মের মানুষ সম্পর্কেই কোরানে অভিশাপ প্রদান করেনি । তবে শুধু একজনকেই আল্লাহর অভিশপ্ত বলা হয়েছে সে হল মারদুদ শয়তান । তাকেই মালাউন ঘোষণা করা আছে । কেননা, সেই ইবলিস হল আল্লাহর নিয়ামত থেবে বঞ্চিত। তার সন্মান সুখ্যাতি সকল কিছুই ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে তাই সে আল্লাহর অভিশাপপ্রাপ্ত।
বাকি থাকলো যারা মুসলীম ব্যতিত ভিন্নধর্মী, তাদেরকে আল্লাহ তালা ফুল ফল জল পানি ব্যবসা বানিজ্য বিজ্ঞান, সুখ শান্তি প্রভাব প্রতিপত্তি, এসবের কিসে থেকে তাদের আল্লাহ বঞ্চিত করে রেখেছেন?
তাই মুসলীম ব্যতীত অন্য ধর্মের মানুষকে আল্লাহ মালাউন বলেননি, এবং কাউকে বলা উচিতও নয় । আল্লাহ তালা শুধু অবিশ্বাসীদের উদ্দেশ্যে পরকালের আজাবের ভয় দেখিয়েছেন । অবিশ্বাসী অর্থ কাফের । কিন্তু হিন্দুরা কাফের নয়, এরা হল পৌত্বলিক। আরবীতে যাকে মুসরিক বলা হয়েছে । তাদের মালাউন বলা হয়নি ।
শুধু পাকিস্তানীরাই এই শব্দ ভারতীয় হিন্দুদের উদ্দেশ্যে ব্যবহার করে থাকে। সাম্প্রদায়ীকতার বীজ বপন করে যাদের জন্ম সেই পাকিস্তানীরা হিন্দুদের মালাউন বলে গালি দেয়, আর এই ভাবধারা যারা বিশ্বাস করে তারাই হিন্দুদের মালাউন বলে গালি দিয়ে থাকে।

আমার মতে বর্তমান পশু মন্ত্রী হিন্দুদের মালাউন বলে গালি দিয়ে নিজেকেই অভিশপ্ত করে ফেলেছেন। জাতির প্রতিটি মানুষ এই ব্যক্তিকে ঘৃনা করছে । তাই জনগণের চোখে অভিশপ্ত ।
আমাদের কামনা এই অভিশপ্ত মন্ত্রীকে মন্ত্রণালয় থেকে হটিয়ে দিয়ে দেশ ও জাতিকে পবিত্র করবেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী । আমরা পাকিস্তানী ভাবধারার ব্যক্তিকে মন্ত্রীর আসনে দেখতে চাইনা ।