ক্যাটেগরিঃ প্রযুক্তি কথা

 

সেদিন একজন ব্লগে লিখেছেন আমাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রী নাকি বলেছেন, যারা ভারতীয় বা অন্যদেশের ওয়েব সাইট হ্যাক করছেন তারা দেশ বিরোধী অপরাধ করছেন, আর এটা বলা নাকি অপরাধ হয়েছে এই ব্লগের লেখকের মতে!!! আমি ঐ ব্লগারকে বলতে চাই, আপনি হয়তো আইন জানেন না । আইন মোতাবেক আমরা নিজদেশে যেমন কোন দেশ বিরোধী অপরাধ করতে পারিনা ঠিক অন্যদেশের বিরুদ্ধেও কোন অপরাধ করতে পারিনা ।

আন্তর্জাতিক আইনেই আছে “কোন রাস্ট্রের অভ্যন্তরীন বিষয়ে অন্যদেশের সাধারণ ব্যক্তি কোন হস্তক্ষেপ করতে পারবে না”, আবার “কোন দেশের বিরুদ্ধে কোন এমন কাজ করা যাবে না যেটা কিনা তার আপনদেশ তাকে দায়িত্বপ্রাপ্ত করেনি । অর্থ্যাৎ সরকারি অনুমতি ছাড়া অন্য দেশের অভ্যন্তরীন বিষয়ে কোন মন্তব্য বা কাজকর্ম করা যাবেনা ।”

যদি কেউ রাষ্ট্রের বিনা অনুমতিতে অন্যদেশের বিরুদ্ধে কাজ করে তবে ঐ ব্যক্তির তার নিজ দেশের রাষ্ট্র বিরোধী কাজ হয় কেননা এতে তার রাষ্ট্র নিজেই বিব্রত হতে পারে।

সুতরাং, আমি অনুরোধ জানাই তাদের, যারা না বুঝেই পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সমালোচনা করছেন, আপনারা না বুঝে কোন সমালোচনা করবেন না । সমালোচনা করতে বাধা নেই কিন্তু বুঝেশুনে করুণ । এমন কাজ কখনই করা ঠিক নয় যাতে নিজ রাষ্ট্র বিব্রত অবস্থায় পরে ।

সাইবার যুদ্ধ করছে যারা তারা তো আমাদের দেশের দেশপ্রেমিক হতে পারেনা! তারা কি রাষ্ট্রের অনুমতি নিয়েই এসব কাজ করছে? না, তা করছেনা । তবে তারা কি আমাদের দেশের বিরুদ্ধে কাজ করছে না?

ভারতের ওয়েবসাইট হ্যাক করা মানে আমাদের ওয়েবসাইট হ্যাক করতে তাদের সুযোগ করিয়ে দেয়া । যুদ্ধ তখনই হয় যখন দু‘টি পক্ষ মুখোমুখি অবস্থান গ্রহণ করে । আমাদের এমন কাজ করা উচিত নয় যাতে একটি দেশের সাথে আমাদের সম্পর্ক খারাপ হতে পারে, আমাদের ব্যক্তি ও নাগরিক হিসেবে সেই অধিকার নেই। ওয়েবসাইট হ্যাক করা কোন বৈধ কাজ নয় । সুতরাং আমাদের আরও সচেতন হতে হবে, মনে রাখতে হবে একটা দেশের সাথে বন্ধুত্ব তৈরি করা বড়ই কঠিন, ভাঙ্গা সহজ !! তাই নিজের বিবেক দিয়ে একবার চিন্তা করুণ অন্যদেশের ওয়েবসাইট হ্যাক করা কি কোন বৈধ কাজ কিনা !!