ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা, ব্লগ সংকলন: সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ড

বেশ কিছুদিন ধরেই সাগর-রুনি বিষয় বাংলাদেশে একটি ধাঁধা হয়ে আছে । কে এদের হত্যাকারী । . মজার ব্যাপার হল সরকারও এই সময় নীরব দর্শকের ভুমিকা পালন করছে । স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন ঘন্টা বেঁধে দিয়ে মাস পার করছেন কিন্তু এই রহস্যের জট খুলতে পারেননি। পারবেন কি করে, দেশে যত হত্যাকাণ্ড ঘটেছে তার কোনটারই কি কখনও জট খুলেছে ? প্রশাসনের ব্যার্থতা মন্ত্রণালয়ের উপর বর্তায় কারণ এর চালক মন্ত্রণালয় । এটাও বুঝতে হবে গাড়ি তখনই এগুতে পারে যখন চাকাগুলো সচল থাকে। আমাদের ঘূণে ধরা দূর্নীতি গ্রস্থ প্রশাসন বহুবছর আগে থেকেই অচল । তা নাহলে , দেশে ৬ মাস বাংলাভাই তান্ডব চালায় প্রশাসন চুপ থাকতে পারে ! গাছে ঝুলিয়ে মানুষ হত্যা করে, পুলিশ চুপ থাকে। ২১ আগষ্ট একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও সেই সময়ের বিরোধী দলীয় নেত্রীর উপর হামলার সময় পুলিশ নিরব দর্শক হয়ে কেন থাকে । । আর ঘটনা ঘটে যাবার পর কোন কূল কিনারা কি কোন কালে হয়েছে ?? হলে, গ্রেনেড হামলার তদন্ত রিপোর্ট কেন হলনা । কেন হলনা বাংলাভাই উত্থানের নেপথ্যের তথ্য উৎঘাটনের তৎপরতা ? কেন শাহ এম এ এস কিবরিয়ার হত্যাকাণ্ডের বিচার হলনা , হলনা কেন তার তদন্ত । কেন আহসানুল্লাহ মাস্টারের হত্যার প্রত্যক্ষদর্শী হত্যা করে মামলার মোড় ভিন্ন দিকে প্রবাহিত করা হল । কেন ২০০১-০৬ পর্যন্ত ২৮ হাজার মানুষ গুলি, জবাই, গ্রেনেড হামলায়, আর ক্রসফায়ারে মরবে ? তার বিচার আর তদন্ত কই ? হয়নি…….., কিছুই হয়নি । আর বাঙালি গোল্ডফিস , মাছের ব্রেন যা স্মরণ থাকেনা।

সম্মুখ সময়কেই শ্রেষ্ঠ খারাপ সময় মনে করে! পিছন ফিরে দেখেনা । পিছনে দেখতে হবে একটাই কারণে , আমাদের এমন ঘটনা যদি আগে ঘটে থাকে তবে তার বিচার বা তদন্ত কি হয়েছিল , বা কেন হয়নি. তা দেখতে হবে । আর তা দেখলে বোঝা যাবে আমাদের প্রশাসনের দুর্বলতা আছে কিনা। পুলিশ গোয়েন্দা রাতারাতি পরিবর্তন হবেনা , রাতারাতি এফবিআই বা ইন্টারপোল কোয়ালিটির দক্ষতা অর্জন করবেনা । আর রাতারাতি চরিত্র পরিবর্তন হবেনা । বুঝতে হবে আমাদের মরিচা পড়া প্রশাসন আগে থেকেই এমন । আজ নূতন নয় । এমন সাগর-রুনি ঘটনা অতিতেও ঘটেছে কিন্তু বিচার হয়নি । সাংবাদিক মানিক শাহা হত্যার বিচার হয়নি, বালু হত্যার বিচার হয়নি, গোপাল কৃষ্ন হত্যার বিচার হয়নি । কেন হয়নি ? এর পিছনে রয়েছে আমাদের প্রশাসনের ব্যর্থতা। আগে কি এমন ঘটনা ঘটেনি?

আজ দেশে হয়ত সাংবাদিক হত্যা কম হচ্ছে বলেই একটি ড্রইংরুমের হত্যার কাহিনী মাসের পর মাস পত্রিকার পাতা দখল করে আছে, কিন্তু বিগত সরকারের সময়ে আমরা যা দেখেছি তা রীতিমত নারকীয় পরিস্থিতি! একদিকে দেশে পুলিশ প্রশাসনের পেটুয়া বাহিনীর আক্রমণ, অন্যদিকে যৌথ বাহিনীর অপারেশন ক্লিন হার্ট নামে পিটিয়ে মানুষ মেরে হার্ট এ্যাটাক বলে চালিয়ে দেয়া। একদিকে ক্রসফায়ার ত অন্যদিকে পিতাপুত্রের ১২২ টুকরা লাশের নিত্য নৈমত্তিক ঘটনা । বিএনপি জোট সরকারের ছত্রছায়ায় তাদের যুব ও শিবির বাহিনীর ধর্ষণ ও হত্যা তো অন্যদিকে হিন্দু সহ সংখ্যালঘুদের বাড়িঘর লূট আর আগুনে পুড়িয়ে মারা । জোট সরকারের সময় জুড়ে গ্রেনেড বিস্ফোরণ আর সর্বহারার মানুষ জবাই, অন্যদিকে জেএমবি হুজি জেএমবির নামে দেশে জঙ্গি উত্থান !! প্রকাশ্য দিবালকে মানুষ জবাই আর পিটিয়ে মারা । ৮০ বছরের বৃদ্ধ সাংবাদিককে চট্টগ্রাম স্টেডিয়ামের কেন পেটানো হল তার জবাব কি বিগত জোট সরকার দিয়েছেন ? ইকবাল সোবহান চৌধুরী সাহেবের উপর আক্রমনের জবাব কি বিএনপি জামাত দিয়েছেন ? তারা কি দিয়েছেন সাংবাদিক শাহরিয়ারের উপর হামলা আর গ্রেফতারের ঘটনার বিবরণ ? মুনতাসির মামুনের উপর নির্যাতনে কি কোন রিপোর্ট প্রকাশ হয়েছে ?? হুমায়ণ আজাদ সাহেবের উপর আক্রমণের কি রিপোর্ট দিয়েছে বিএনপি জামাত জোট সরকার? বাঁশখালীতে একই পরিবারের ১১ জনকে পুড়িয়ে মারার কি কোন রিপোর্ট পেয়েছি ? আমরা কি পেয়েছি গির্জাতে বোমা হামলার কোন রির্পোট ? সিপিবির অফিসের ট্রাজেডির? নাটোরে মমতাজ হত্যা, খুলনার মুনজুরূল ইমাম হত্যা , নওগাঁয় আমজাদ হত্যা ও মজিবর মাস্টার হত্যার রিপোর্ট! বিচারালয়ের উপর হামলা হয়েছে দেশ জুড়ে, জগন্নাথ পাড়ের বিচার কি হয়েছে? বা কোন রিপোর্ট?? ১৭ আগষ্ট ৬৩ জেলার ৫০০ জায়গায় বোমার হামলার কারণ বা রিপোর্ট?? কেন এসব হলনা ? কেন হলনা সিলেটে যুক্তরাজ্যের হাইকমিশনার আনোয়ার হোসেনের উপর হামলার কোন রিপোর্ট ? প্রকাশ্য দিবালোকে রাস্তায় বিএনপি জামাত নেতারা সাংবাদিক পিটিয়েছে । জনকন্ঠের সাংবাদিক কে বিএনপির মন্ত্রী আলমগীর কবির পিটিয়ে তার অফিসের বাথরুমের মধ্যে বন্দি করে রাখে!
দেশে সুশীল সমাজ দাঁড়াতে পারেনি। বদরুদ্দোজার বাসায় কারা আগুন লাগাল? কারা তার জনসভাস্থলে তার উপর মটরসাইকেল তুলে দিয়েছিল? প্রাণ বাঁচাতে বেচারা সাবেক রাষ্ট্রপতি খালি পায়ে গলি দিয়ে দৌড়াতে রাস্তা পায়নি!! কোনটির জবাব দিয়েছেন তারা, যারা আজ বলে দেশে সুশাসন নেই বা কোন হত্যাকাণ্ডের বিচার বা রিপোর্ট নেই!! তারা তো ভাল ভাবেই জানেন এই দেশে এতগুলো অপরাধ হয়েছে যার কোনদিন কোন সরকার বা সরকারের আন্ডারে থাকা বাহিনী কোন রিপোর্ট অতীতে দিতে পারেনি , আজও পারছেনা??

শাসক আসে যায়, অপরাধ কোম বেশি হয় কিন্তু কোন কিছুরই সুরাহা হয়না । আমরা চাই এমন কোন কাজ কেউ না করুক যাতে যারা রাজনীতি করছে তাদের কেউ কেউ এই বিষয় নিয়ে সুযোগ পেয়ে যায়। আমরা কাউকেই সুযোগ দিতে চাইনা । আমরা চাই যারা সাগর-রুনির ব্যাপারে মাঠে নেমেছেন তারা বুঝুন, এমন বিচার না হওয়ার ঘটনা শুধু আজ নয় , বহু পুরাতন!! তাই আমরা যেন এটা মনে না করি এখানে সরকারের একক ইচ্ছাতেই এমন ঘটছে । আসলে সরকারের শুধু মন্ত্রীদের দোষ দিলে হবেনা , আমি মনে করি এটা আগের ঘটনার মত প্রশাসনের ব্যার্থতা । তবে সরকারকে আরও যত্নবান হতে হবে। তবে সরকার যে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজনীতি করেনি এজন্যও তাদের ধন্যবাদ জানাই । কারণ, তারা ঘটার মোড় অন্যদিকে ঘুড়াতে জর্জ মিয়ার নাটক করতে পারত । বিরোধী দলকে আঘাত করতে পারত। কিন্তু সরকার তা না করে সঠিক পথেই আছে বলে আমি মনে করি তবে প্রশাসনের ব্যার্থতায় অনেক সময় নষ্ট হচ্ছে, যা অনাকাঙ্খিত!! দেরিতে হলেও আমরা সঠিক বিচার চাই । নিরপরাধ শাস্তি না পাক, আর অপরাধী সাজা পাবে সেটাই কামনা । আর আন্দোলনকারীদের বলব আপনারা রাজনীতিবিদদের মত আচরণ ছাড়ুন, এতে কাউকে সুবিধা করে দিবেন না ।