ক্যাটেগরিঃ ধর্ম বিষয়ক

 

আল্লাহর একটি ফরজ আদেশ কার্যকর করার জন্য সৌদি আরবকে আল্লাহ আরো শক্তিশালী ও আল্লাহর আইন কার্যকরের জন্য দৃড় প্রতিজ্ঞ করে দিন। সাথে সাথে শোক বিহল পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছি এবং আল্লাহ যেন তাদের ধৈর্য্য ধরার তাওফক দান করেন।

আজকের বিশ্বে আল্লাহর আইন কার্যকর নাই বলে বিশ্বে জগতে অপরাধ দিন দিন এতে বেড়ে চলছে যে মানুষের স্বাভাবিক মৃত্য আশা করা যায় না। যেখানে আল্লাহর আইন যতবেশী কার্যকর সেখানে ততবেশী শান্তি, সুখময় ও অপরাধ মুক্ত থাকবে।

আজকে যেমন ‍আসামী পক্ষ আপনজন হারিয়ে শোকবিহল তেমনি ঐ দিনও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার এই রকম শোক বিহল ছিল। আশা করি আসামী পক্ষের লোকজন বুঝতে কষ্ট হচ্ছে না।
আল্লাহর আইন ছাড়া বিশ্ব শান্তি তথা অপরাধ মুক্ত বিশ্ব গড়া সম্ভব নয়। সুতারাং যারা এই রায়ের বিপক্ষে মন্তব্য করবে তারা ইসলাম থেকে খারিজ হয়ে যাবে। যার শরীরে এক বিন্দু পরিমান মুসলমানের রক্ত আছে সে এই রায়ের বিরোধিতা করতে পারবেনা।

আমেনিষ্টি কি বলল এই রায়ের ব্যাপারে তা কোন মুসলমানের ভাববার বিষয় নয়। অধিকাংশ ক্ষেত্রে আমেনিষ্টির মুল তন্ত্র “ চোরকে বল চুরি কর আর গৃহস্থকে বলে সজাগ থাক”। অথ্যাৎ ন্যায় প্রতিষ্ঠা কর আবার অন্যায়কারীকে শাস্তি দেয়া যাবেনা। ব্রিটিশ আইনে যদি ফাঁসি হয় তাহলে শরীয়া আইনে কেন কতল করা হবে না?

যারা নাম দিয়ে মুসলমানের পরিচয় দিচ্ছেন তাদের বলছি ইসলাম এমন নয় যে ইচ্ছা বা অনিচ্ছায় আপনাদেরকে ইসলামে মধ্যে থাকতে হবে। এই ব্যাপারে ইসলামের স্বাধীনতা দিয়েছে যে যারা ইসলামের আইন তথা কুরআনের আইন ভাল লাগবে না তারা ইসলাম ত্যাগ করতে পারবে। ‍কারন ইসলামের গন্ডির ভিতরে থেকে ইসলামের বিরোধিতা করা এই রায়ের মত শান্তি হওয়া উচিত।

যেই গ্রন্থের দাবিতে মুসলমান সেই গ্রন্থ এর আইন মানবে না তা হতে পারে না। সুতারাং নাম দিয়ে ইসলামে থাকার কোন সুযোগ নেই। ইসলাম শুধু নামের মধ্যে নয় সত্যিকার ইসলাম হচ্ছে মানার মধ্যে।
সামান্য লোকের ক্ষতির জন্য বিলিয়ন বিলিয়ন লোকের শিক্ষা ও উপকার হলে সমস্যা কোথায়?

ধর্মনিরেপক্ষ দেশ বলে আজকে অনেকে কুরআনের রায়ের বিপক্ষে মন্তব্য করেছে। কুরআনের রাজ থাকলে এই জাতীয় লোকেরও বিচার হত। আল্লাহ তাদের বুঝার তাওফিক দিন এবং হেদাযেত দিন।