ক্যাটেগরিঃ চিন্তা-দর্শন

 

very_funny_jokes_30

দিন কয়েক আগে আবিষ্কার করলাম, “থিওরি অব ক্রিয়েটিভিটি”। আবিষ্কার করার পর কয়েক দফা এক্সপেরিমেন্ট করলাম। দেখি কাজ হচ্ছে। হলফ করে বলতে পারি, আমার থেকে বড় বড় পণ্ডিতরা এটা আবিষ্কার করেছেন হাজার বছর আগে। কাজেও লাগিয়েছেন। ফলও ভোগ করেছেন। আমার সার্থকতা হলো, তাদের থিওরি পড়ে এইটা আমি শিখিনি। আমি ভেবে বের করেছি। থিওরিটা হলো যেকোনো জিনিসকে উল্টে দেয়া। মানে কনভেনশনালি আমরা যা করি, তা না করে উল্টো করে করা। এইটা নতুনত্ব তৈরি করে। কেমন?

ধরুণ, আপনি একটা চায়ের দোকানে গেলেন। বললেন আপনাকে একটা চা দিতে। চা দেয়ার পরপরই চা খাওয়ার জন্য আপনি চায়ের কাপ মুখের কাছে না এনে মুখই চায়ের কাপের কাছে নিয়ে গেলেন। অথবা ব্যাপারটা আপনি কল্পনা করেন, আপনার সামনে কাউকে দেখলেন যিনি চায়ের কাপ মুখে না তুলে, মুখই চায়ের কাপের কাছে নিয়ে গেলেন। এবং এভাবে চা খাওয়ার চেষ্টা করছেন।

বুঝতে কষ্ট হলে আরেকটা উদাহরণ দেই। আপনি রিক্সায় চড়ে কোথাও যাচ্ছেন। আপনার পাশ দিয়ে একটা মোটরসাইকেল যাচ্ছে। মোটরসাইকেল চালাচ্ছে একটা ছেলে, আর পেছনে বসে আছে একটা মেয়ে। কিন্তু, প্রায় সবাই একবার করে মোটরসাইকেলের দিকে তাকাচ্ছে ব্যাপারটা বোঝার জন্য। পেছনের মেয়েটি উল্টো হয়ে বসে আছে। অর্থাৎ, সে পেছনের দিকে তাকিয়ে আছে। ব্যাপারটা দেখলে হাসি পেতে পারে। এবং আমার মনে হয়, অবশ্যই হাসি পাবে। এটাই হলো দুইটা উদাহরণ। মূলত এই কাজসূত্র কমেডি টাইপের লেখা বা কমেডিভিত্তিক নাটক তৈরিতে কাজে আসবে বলে আমার কাছে মনে হয়েছে।

এখন কথা হচ্ছে এরকম দৃশ্য দেখে আমাদের হাসি পায় কেন? অথবা আরও সহজ করে বলি, কমেডি দেখে আমাদের হাসি পায় কেন? অনেকদিন আগে উইকিপিডিয়াতে খুঁজতে খুঁজতে পেলাম থিওরি অব লাফটার। এতে অ্যারিস্টটল বলেছেন, “We laugh at inferior or ugly individuals, because we feel a joy at feeling superior to them.” এই বাক্যের অর্থ যদি আমার নিজেদের ভাষায়, এই সময়ে বলি, তাহলে তার অর্থ খাড়ায় এমন, “আমরা কাউকে যখন ভোদাইয়ের মতো কাজ করতে দেখি তখন হাসি। হাসার কারণ, এই যে তাদের থেকে আমাদের চাল্লু মনে হয়। বলে রাখি, থিওরি অব হিউমার বা লাফটারের অনেকগুলো থিওরি আছে। তার মধ্যে এইটা একটা।

যাই হোক, ঘটনা একটাই, এমন হতেই পারে গুলশান-১ মোড়ে দেখলেন একটা লোক সানগ্লাস পরে, টাই-কোট-জুতা পরে রিক্সা চালাচ্ছে, আসে যাত্রী হিসেবে বসে আছে ময়লা লুঙ্গি, পঞ্চের স্যান্ডেল পরা এক লোক। ভাব নিয়ে টান দিচ্ছে দেড় টাকা মূল্যের একটা স্টার সিগারেট। হাসি পাবে না এইটা আমার মনে হয় না।