ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

সম্প্রতি মডেল আদৃতার মৃত্যু নিয়ে hidden truth নামের একটি ফেসবুক পেজে অনলাইন এক্টিভিস্টদের নিজেদের তদন্ত দেখে রীতিমত আমার মাথা ঘুরে যায়। সেখানেই বেশ স্পষ্ট ও বিশ্বাসযোগ্যভাবে উঠে এসেছে বাংলাদশেই বনানীতে হোটেলে মডেলদের নগ্ন ছবি তোলা হয়। এবং এখানে তদন্তে যা দেখলাম আমাদের আশেপাশের ফটোগ্রাফাররাই এই কাজের সাথে যুক্ত।

এখানে দেখানো হয়েছে, সেখানে আদৃতাকে বনানীর একটি হোটেলে কিছু ফটো তোলার প্রস্তাব দেয়, স্বল্প বসনে তুলতে হবে সেই ছবি (ছবি-৮), বিশেষ জায়গায় গিয়ে বিশেষ ধরনের এই ছবি তোলার নাম ‘পিকনিক’। বনানীর হোটেলে তোলা সেই ছবির কিছু কিছু পাওয়া যায় আদৃতার ফেসবুক প্রোফাইলে, আবক্ষ নগ্ন সে, কোনো কোনোটাতে নিম্নাংশে একটি তোয়ালে জড়ানো, কোনো কোনোটাতে নিম্নাংশ একেবারেই অস্পষ্ট (ছবি-৯)।

মডেলদের তো সাবধান হওয়ার বিষয় আছেই বিভিন্ন বিয়ের অনুষ্ঠান বা অন্যান্য জায়গায় এই ফটোগ্রাফারদের তোলা বিভিন্ন ছবি আসলে তারা কি করছে, সেটা আমার রীতিমত সন্দেহের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

শেষমেষ সমস্ত শিল্পকর্মই না পর্ণোগ্রাফীতে গিয়ে ঠেকে তা নিয়ে ভাবার সময় বোধহয় চলে এসেছে।

হিডেন ট্রুথ এর লিংক