ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

‘স্মৃতির টানে ফিরছি কামালউদ্দিন‘ এই স্লোগানকে ধারণ করে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আ ফ ম কামালউদ্দিন হলের ১ম পুনর্মিলনি অনুষ্ঠিত হয়েছে ২০ নভেম্বর। গত ২০ নভেম্বর শুক্রবার বেলা বারোটায় বেলুন উড়িয়ে পুনর্মিলনি অনুষ্ঠানের উদ্বোধন ঘোষণা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আবুল হোসেন।

IMG_0996

 

উদ্বোধন শেষে উপ-উপাচার্যের নেতৃত্বে সহস্রাধিক শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে এক বর্ণাঢ্য শোভযাত্রা হলের সামনে থেকে শুরু হয়ে পুরো ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ শেষে পুনরায় হলের সামনে এসে শেষ হয়। এসময় হলের শিক্ষার্থীরা ভুভুজেলা বাঁশি বাজিয়ে, রং ছিটিয়ে ও বিভিন্ন মুখোশ পড়ে আনন্দে মেতে ওঠে। হাতির বহর ও বেশ কয়েকটি ঘোড়ার গাড়ি ছিল শোভাযাত্রার বিশেষ আকর্ষণ।

 

IMG_0994

 

শোভাযাত্রায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- পুনর্মিলনি অনুষ্ঠানের আহ্বায়ক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসী বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ফখরুল ইসলাম, পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের প্রধান সমন্বয়ক মাহমুদুর রহামান জনি, সমন্বয়ক ফরহাদ রহমান সরকার, কোষাধ্যক্ষ মো. ওয়ালিউল্লাহ ওলি, পুনর্মিলনির সুভেনিয়র সম্পাদক নাহিদুর রহমান হিমেলসহ আ ফ ম কামালউদ্দিন হলের বর্তমান ও সাবেক শিক্ষার্থী এবং হলের আবাসিক শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।

দিনব্যাপী আয়োজিত এ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে হলের ৩১টি ব্যাচের (১৪তম ব্যাচ থেকে ৪৪তম ব্যাচ পর্যন্ত) প্রায় সহস্রাধিক প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। এছাড়া অনুষ্ঠানের অন্যান্য আয়োজনের মধ্যে ছিলো- বিকেলে বৃক্ষরোপন কর্মসূচী, সন্ধ্যায় স্মৃতিচারণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং পুনর্মিলনী উপলক্ষে তৈরি বিশেষ ডকুমেন্টারী প্রদর্শন। এসময় হলের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা তাদের হল জীবনের বিভিন্ন স্মৃতি চারণ করেন। স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠান শেষে রাতে ব্যান্ডদল চিরকুটের পরিবেশনায় হলের সামনের মাঠে অনুষ্ঠিত হয় কনসার্ট।

উল্লেখ্য, ১৯৮৬ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম নির্বাচিত উপাচার্য প্রয়াত অধ্যাপক ড. আ ফ ম কামালউদ্দিনের নামে নির্মিত হয় এই আবাসিক ছাত্র হলটি। বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৪তম ব্যাচ (১৯৮৪-৮৫ শিক্ষাবর্ষ) থেকে এ হলের কর্যক্রম শুরু হয়ে হলটি স্বগৌরবে প্রায় ৩০ বছর অতিক্রম করেছে। এ হলের প্রাক্তন ছাত্ররা বর্তমানে দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে অবস্থান করছেন।

মন্তব্য ০ পঠিত