ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

 

শিরোনাম দেখে নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন কি নিয়ে কথা বলছি।হাঁ ভাই, বাংলাদেশের ট্রেনের কথাই বলছি।রেল মন্ত্রনালয় নামে একটি স্বতন্ত্র মন্ত্রনালয় চালু হওয়ার সুচনা লগ্নে নতুন মন্ত্রী মহোদয় বলেছিলেন ‘নয়টার গাড়ী কয়টায় আসে তা কেউ জানেনা, নয়টার গাড়ী যেন নয়টায় আসে আমার প্রথম পদক্ষেপ হবে তা নিশ্চিত করা’। বাস্তবে কি নয়টার গাড়ী নয়টায় আসতেছে!বিশ্ব ব্যাপি রেল যোগাযোগ ব্যাবস্থা অত্যন্ত আরাম দায়ক ও সাশ্রয়ী।কিন্তু আমাদের রেল ব্যাবস্থার নানান অব্যবস্থাপনা ও অনিয়মের কারনে মানুষ ইচ্ছা থাকা সত্বেও রেলের আশেপাশে আসে না।ফলশ্রুতিতে সড়ক পরিবহনের সাথে জড়িত সকল গোষ্ঠী একক আধিপত্য প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে আমাদেরকে জিম্মি করে রেখেছে এবং ফায়দা লুটে নিচ্ছে। রেল ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তনের মাধ্যমে সত্যিকারের সেবামূলক প্রতিষ্ঠানে উন্নিত করতে পারলে মানুষ রেলমুখী হবে এবং সড়ক পরিবহন চক্রের কবল থেকে আমরা রেহাই পাব।এই বিষয় গুলো বিবেচনায় এনে সরকার পৃথক মন্ত্রনালয় করলেন। যদি পরিস্থিতি আগের মত “যেই লাউ সেই কদু”ই থাকে তা হলে পৃথক মন্ত্রনালয় সৃষ্টি করে এই দুর্দিনে সরকারের খরচ বাড়ানোর কি কারন থাকতে পরে!