ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

মিয়ানমারের সঙ্গে সমুদ্রসীমার বিরোধ নিষ্পত্তিতে ইটলসের রায়ের পর সরকারকে না জেনেই ধন্যবাদ জানিয়েছিল বিএনপি। কিন্তু ওই রায় নিয়ে ‘শুভংকরের ফাঁকি’ আছে জানতে পেরে ‘শুভকামনা’ ও ‘ধন্যবাদ’ ফিরিয়ে নিয়েছে দলটি।বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ৭ই এপ্রিল সকালে রাজধানীতে এক গোলটেবিল বৈঠকে ‘ধন্যবাদ’ ফিরিয়ে নেওয়ার এই কথা বলেছেন। যখন বিরোধী দল সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছিল তখন তো সরকার তা সাদরে গ্রহন করে ছিল। দাতা প্রদান করেছে এবং গ্রহীতা গ্রহন করেছে। এখন গ্রহীতা ফেরত প্রদানে সম্মত না থাকলে দাতা কি ভাবে তা ফেরত নিবেন? ধন্যবাদ দেওয়ার আগে বিষযটি ভালো ভাবে খতিয়ে দেখা দরকার ছিলনা? এটা আমাদের বিরোধী দলের দূরদর্শীতার অভাব। যদি হুযুগের তালে ধন্যবাদ জানিয়ে থাকেন তা হলে তার জন্য নিজস্ব ফোরামে আলোচনা করে নিজেদের সিদ্ধান্তের বিষয়ে উচিৎ অনুচিত বাদ বিচার করতে পারেন। তার জন্য ভরা মজলিশে প্রদান কৃত ধন্যবাদ প্রত্যাহার করা কি সমিচীন!!