ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

“রেলের অর্থ কেলেঙ্কারির ঘটনায় অবশেষে পদত্যাগ করলেন রেলমন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত। তিনি আজ সোমবার দুপুর একটা ২০ মিনিটে রেলভবনে সংবাদ সম্মেলন করে পদত্যাগের ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, রেলমন্ত্রীর পদে বহাল থাকলে তদন্ত প্রভাবিত হতে পারে, এমন অভিযোগ ও দাবির পরিপ্রেক্ষিতে আমি দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিচ্ছি।

সংবাদ সম্মেলনে সুরঞ্জিতের বক্তব্য
সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেন, ‘রেল মন্ত্রণালয়ের সফলতা যেমন আমার ওপর বর্তায়, তেমনি ব্যর্থতাও আমার ওপরই বর্তায়। এ ঘটনার সঙ্গে আমার কোনো সংশ্লিষ্টতা না থাকার পরও সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে আমি দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিচ্ছি।”প্রথম আলোর খবর।

পদত্যাগ তো করলেন তবে পরিস্থিতি একটু ঘোলাটে করে করলেন। আমরা আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের দিকে তাকালে দেখতে পাই রেল দুর্ঘটনা হলে কোন বাদ বিচার না করে বিনা বাক্য ব্যায়ে রেলমন্ত্রী পদত্যাগ করেন। বাংলাদেশের ক্ষেত্রে বিষয়টি ব্যাতিক্রম। তবে যাই হউক এটি নিঃসন্দেহে বাংলাদেশের রাজনীতিতে একটি মাইল ফলক। আমরা বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসাবে দেখি। বিভিন্ন সময় উনি দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলেছেন এবং থলের বিড়াল বের করার কথা বলতেন। এমনও তো হতে পারে সে থলের বিড়ালই তাকে আঁচল মেরেছেন। সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে বিষয়টি জাতির সম্মুখে উম্মোচন করা এখন সরকারের দায়িত্ব। আমরা সেই অপেক্ষাই আছি।